Monday 17th June 2024
Monday 17th June 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/public_html/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা উঠে গেছে

নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় নদীতে নামার জন্য নৌকা সাজিয়ে রাখছেন জেলেরা। ছবি-দৈনিক হুংকার।

দীর্ঘ দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে নদীতে মাছ শিকারের প্রস্তুতি নিচ্ছেন শরীয়তপুরের জেলেরা। দীর্ঘদিন পর নদীতে গিয়ে আশানুরূপ মাছ পাবেন, এমনটাই আশা তাদের। এরই মধ্যে মাছ শিকারের সকল উপকরণ প্রস্তুত করেছেন জেলেরা।
শরীয়তপুর জেলার জাজিরা, নড়িয়া, ভেদরগঞ্জ ও গোসাইরহাট উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের জেলে পল্লীতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, দীর্ঘ দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে শরীয়তপুরের পদ্মা, মেঘনা নদীতে মাছ শিকারের জন্য জাল, নৌকা, ট্রলারসহ বিভিন্ন উপকরণ প্রস্তুতে ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলার প্রায় ২০ হাজার জেলে। নিষেধাজ্ঞা শেষে দল বেঁধে আবারো নদীতে নামবেন তারা। নদীতে বড় সাইজের ইলিশসহ বিভিন্ন ধরণের মাছ শিকার করতে পারবেন বলে আশা তাদের।
ভেদরগঞ্জ উপজেলার উত্তর তারাবুনিয়া ইউনিয়নের জেলে সাইফুল মাঝি ও তাজুল মাঝি জানান, দুই মাসের নিষেধাজ্ঞার কারণে আমরা নদীতে গিয়ে মাছ ধরতে পারিনি। এখন নিষেধাজ্ঞা শেষে নদীতে যাওয়ার জন্য নৌকা, ট্রলার, জালসহ মাছ শিকারের সকল সামগ্রী প্রস্তুত করেছি। জেলেরা দল বেঁধে নদীতে গিয়ে ইলিশ, পোয়াসহ বিভিন্ন ধরণের মাছ ধরবো।
নড়িয়া উপজেলার ঘড়িসার ইউনিয়নের সুরেশ্বর এলাকার জসিম মাঝি বলেন, নিষেধাজ্ঞার সময় আমাদের আয় রোজগার বন্ধ ছিল। তাই ধার-দেনা করে সংসার পরিচালনা করেছি। তার আগে এনজিও ও ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে জাল, নৌকা, ট্রলার তৈরি করেছি। সেই ঋণের কিস্তি নিষেধাজ্ঞার মধ্যে দিতে না পেরে পালিয়ে বেড়িয়েছি। এখন নিষেধাজ্ঞা শেষে নদীতে গিয়ে ইলিশ, পোয়াসহ বিভিন্ন ধরণের মাছ শিকার করে বকেয়া কিস্তি ও ধার-দেনা পরিশোধ করবো।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম বলেন, দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা সফলভাবে সম্পূর্ণ করেছি। নদীতে বর্তমানে প্রচুর পরিমাণ ইলিশসহ বিভিন্ন ধরণের মাছ রয়েছে। তাই নিষেধাজ্ঞা শেষে জেলেরা নদীতে গিয়ে কাঙ্খিত মাছ পেয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন। আর সেই সঙ্গে শরীয়তপুরের ইলিশ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হবে।
ইলিশের আভয়াশ্রমের কারণে শরীয়তপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীর ৬০ কিলোমিটার এলাকায় ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ইলিশসহ সব ধরণের মাছ শিকারের নিষেধাজ্ঞা চলছিল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।