শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২ জিলহজ ১৪৪৩ হিজরি
শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

জাজিরায় নতুন ঘাট নির্মাণ শেষ, ফেরী পারাপার শুরু

জাজিরা-শিমুলিয়া রুটে নতুন আরেকটি ফেরিঘাট। ছবি-দৈনিক হুংকার।

জাজিরা-শিমুলিয়া রুটে নতুন করে আরেকটি ফেরিঘাট নির্মাণের কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরিন নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) উপপরিচালক ওবায়দুল করিম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) বেলা সারে ৩ টায় কর্নফুলি নামে একটি ছোট ফেরি জাজিরার মাঝির ঘাটের নতুন ফেরিঘাটে ভিরে পরিবহন নামিয়ে আবার লোড করে শিমুলিয়ার উদ্দেশ্য ছেরে যায়।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরিন নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) প্রকৌশল বিভাগের কার্য-সহকারি প্রকৌশলী মো.ফয়সাল বলেন, গত বুধবার থেকে আমরা ফেরিঘাট নির্মাণের কাজ শুরু করি। ২৮ তারিখে ফেরি চলাচলের কথা থাকলেও সময়ের আগে আমদের ফেরিঘাটটি প্রস্তুত হয়। ১০০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৫০ ফুট প্রশস্ত ফেরিতে ওঠার জন্য রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া যে সব জায়গা দিয়ে গাড়ি চলাচল করবে সেই জায়গা গুলো আমরা ইট ও বালি দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করেছি।
ঘাট ম্যানেজার সালাউদ্দিন বলেন, এই রুটে একটি ফেরিঘাট ছিল। এখন নতুন করে আরেকটি ফেরিঘাট তৈরি করা হয়েছে। কর্ণফুলি নামের একটি ছোট ফেরি বেলা সারে ৩ টায় শিমুলিয়া ঘাট থেকে জাজিরার মাঝির ঘাটে আসে। এছাড়া এই রুটে ৫টি ফেরি চলাচল করছে।
বিআইডব্লিউটিএ ও বিআইডব্লিউটিসি সূত্র জানা যায়, বাংলাবাজার ও শিমুলিয়া নৌপথ দিয়ে দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন জেলার যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী যানবাহন ফেরি পারাপার হয়ে থাকে। ওই নৌপথে ফেরি চলতে গিয়ে গত বছরের ২০ জুলাই পদ্মা সেতুর একটি পিলারের সঙ্গে রো রো ফেরির ধাক্কা লাগে। এরপরও নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে বেশ কয়েকবার পদ্মা সেতুর সঙ্গে ধাক্কা লাগে ফেরির। এমন পরিস্থিতিতে গত বছরের ১৮ আগস্ট থেকে ওই নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়া। এতে করে দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ চরম বিপাকে পরেন। এর পর নদীর স্রোত কমে গেলে গত নভেম্বরে ওই নৌপথে দিনের বেলা স্বল্প পরিসরে ফেরি চলাচল শুরু করা হয়। জরুরী সেবা নিশ্চিত করতে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার সাত্তার মাদবর-মঙ্গল মাঝির ঘাট এলাকায় গত বছরের ২৫ আগস্ট নতুন করে একটি ফেরিঘাট নির্মাণ করা হয়। প্রথমে নাব্যতা সংকটের কারণে ওই পথে ফেরি চলাচল শুরু করা যায় নি। গত বছরের ৮ ডিসেম্বর থেকে ওই নৌপথে ফেরি চলাচল শুরু করা হয়।
গত সোমবার (১৮ এপ্রিল) নৌপথটি পরিদর্শন করেন বিআইডব্লিউটি এর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক। তখন সাত্তার মাদবর, মঙ্গমাঝির ঘাটে আরেকটি ফেরিঘাট নির্মাণের ঘোষনা দেন। এর পরই সংস্থাটির প্রকৌশল বিভাগ গত বুধবার থেকে ফেরিঘাট নির্মাণ কাজ শুরু করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।