শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি
শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সারাদেশে নদীভাঙন কবলিত এলাকাকে ঝুঁকিমুক্ত করার জন্য কাজ চলছে: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

সারাদেশে নদীভাঙন কবলিত এলাকাকে ঝুঁকিমুক্ত করার জন্য কাজ চলছে: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী
জাজিরায় পদ্মা নদীর ভাঙন কবলি এলাকা পরিদর্শন করছেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। ছবি-দৈনিক হুংকার।

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সারাদেশের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো ঝুঁকিমুক্ত করার লক্ষ্যে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ড সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ বছর পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রচেষ্টায় হাওড় অঞ্চলের কৃষক সঠিক সময়ে ফসল ঘরে তুলতে পেরেছে। কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। সারাদেশে নদীভাঙন কবলিত এলাকাকে ঝুঁকিমুক্ত করতে পর্যায়ক্রমে স্থায়ী প্রকল্প করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই অনেক ভাঙন কবলিত এলাকা ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে।
বুধবার (১৮ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নদীভাঙন কবলিত জাজিরা, পূর্ব নাওডোবা, পালেরচর, বড়কান্দি, বিলাসপুর ইউনিয়নের ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে এবং ত্রাণ বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে স্থায়ী ভাঙন রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনা দুর্যোগের পূর্বে থেকে শুরু হওয়া কাজ যথারীতি চলমান রয়েছে। সারাদেশে স্থায়ী প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে সারাদেশে নদী ভাঙনের সমস্যা আর থাকবে না। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী প্রজন্মকে নিয়ে ভাবেন, তাই আগামীর বাংলাদেশকে নদীভাঙন মুক্ত করতে কাজ করে যাচ্ছেন। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে “ডেল্টাপ্লান-২১০০” বাস্তবায়িত হলে দেশে কোন ধরণের ভাঙনের সমস্যা থাকবে না। আর জাজিরাকে নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষায় প্রয়োজনীয় সকল কিছু করা হবে।
এসময় সঙ্গে ছিলেন, শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পশ্চিম) প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হেকিম, ফরিদপুর অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক শহিদুল আলম, শরীয়তপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবিব, জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুজ্জামান ভূইয়া, নড়িয়া পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির মোল্যা, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য জহির সিকদার, জাজিরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাস্টার জিএম নুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব চৌকিদার, পৌরসভার মেয়র ইদ্রিস মাদবর, জাজিরা ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার এসএম রফিকুল ইসলাম প্রমূখ।
এসময় তিনি ৫টি ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত ১০০ পরিবারের প্রত্যেকে ২ বান্ডেল করে টিন এবং তাদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক খাদ্যসহায়তা বিতরণ করেন।
পানি সম্পদক উপমন্ত্রী বলেন, ভাঙন কবলিত জাজিরা উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের পদ্মার পূর্ব পাড়ে আড়াই কিলোমিটার স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এছাড়া ভাঙন প্রতিরোধে ভাঙন কবলিত এলাকায় ইতিমধ্যে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জিও টিউব ফেলা হচ্ছে।
এর পূর্বে সকালে উপমন্ত্রী মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শন, বৃক্ষরোপণ ও মানবিক সহায়তা প্রদান এবং ভোজেশ্বর বাজার (আরসিসি ড্রেন ও সড়ক) নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন এবং ঘড়িষার ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান, সদ্য প্রয়াত লুৎফর রহমান ও বিঝারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সদ্য প্রয়াত দিলু শেখের কবর জিয়ারত করেন।

জাজিরায় পদ্মা নদীর ভাঙন কবলি এলাকা পরিদর্শন করছেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। ছবি-দৈনিক হুংকার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।