বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি
বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নড়িয়ার রাজনগরে ২৫ মণ ওজনের কালা মানিকের দাম ৭ লাখ টাকা!

নড়িয়ার রাজনগরে ২৫ মণ ওজনের কালা  মানিকের দাম ৭ লাখ টাকা!
নড়িয়ার রাজনগরে ২৫ মণ ওজনের কালা মানিকের দাম ৭ লাখ টাকা!

শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের বিল দেওয়ানিয়া গ্রামের কৃষক লিটন মাদবর এর খামারে অষ্টেলিয়ান ক্রস জাতের একটি ষাঁড় পালন করেছেন। এটির শরীর কুচকুচে কালো রঙের এবং ওজন প্রায় এক হাজার কেজি বা ২৫ মণ। বয়স ৩ বছর। গায়ের রং কালো হওয়ায় কৃষক আদর করে নাম দিয়েছেন কালা মানিক। ইতোমধ্যে এই গরুটি এলাকায় বেশ সাড়া ফেলেছে। গরুটি দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসছে। মালিক লিটন মাদবর কোরবানির ঈদ উপলক্ষে এই ষাঁড়টি বিক্রি করতে চায় ৭ লাখ টাকায়। এজন্য এই ০১৮৭৬-১২৪৬০৯ হটলাইন নাম্বার চালু রেখেছেন তিনি। এই গরুটি কিনলে সাথে একটি প্রায় ৩০ হাজার টাকা মূল্যের খাসি ফ্রি দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।
তিনি আরও জানান, এই গরুটি দেশীয় পদ্ধতিতে লালন পালন করেছেন। নিয়মিত খাবার ও পরিচর্যা করার ফলে দিনে দিনে এই গরুটির ওজন বেড়ে ২৫ মণ হয়েছে। কোনো ধরণের ক্ষতিকর ট্যাবলেট ও ইনজেকশন ছাড়াই সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে খড়, তাজা ঘাস, খৈল, ভুষি, চালের কুড়া, ভুট্টা, গম, ভাতসহ পুষ্টিকর খাবারের মাধ্যমে লালন পালন করা হয়েছে এটি। প্রতিদিন এই গরুটির জন্য খরচ হয় প্রায় ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা। পাশাপাশি নিয়মিত গোসল করানো, পরিষ্কার ঘরে রাখা ও রুটিন অনুযায়ী ভ্যাকসিন দেয়াসহ প্রতিনিয়ত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া হয়।
খামারের পরিচালক শাহজালাল মাদবর জানান, গরুটি ৭ লাখ টাকার উপর বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা করছেন তারা। তবে করোনার সংক্রমণের কারণে গরুটি তিনি কোনো হাটে না নিয়ে বাড়িতে খামারে রেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি ও বিবরণ দিয়ে বিক্রির চেষ্টা করছেন তারা। কোরবানির ঈদ উপলক্ষে বিক্রি করার জন্য এই কালা মানিক সহ আরো ২টি গরু প্রস্তুত রয়েছে তাদের। পাশাপাশি তাদের খামারে মোট ১২টি গরু রয়েছে। এবার সফল হলে সামনেও আরও বেশি গরুর সংখ্যা বাড়াবে বলে জানান তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।