মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

জাজিরায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজদের উদ্ধার কার্যক্রম চলছে

জাজিরায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজদের উদ্ধার কার্যক্রম চলছে
জাজিরায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজদের উদ্ধার কার্যক্রম চলছে

শরীয়তপুরের জাজিরা থেকে জেলে ট্রলারে পদ্মা নদী পার হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে যাওয়ার সময় ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। দ্বিতীয় দিনে ২৮ মে শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে আবারও উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুজ্জামান ভূঈয়া।
গতকাল ২৭ মে বৃহস্পতিবার পদ্মা নদীর জাজিরা অংশে এই ট্রলারটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় একজনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। তবে নিখোঁজ রয়েছে ওই ট্রলারে থাকা আরও চারজন। রাতে স্রোত ও অন্ধকার নেমে আসায় উদ্ধার কাজ বন্ধ রাখা হয়েছিল। মরদেহ উদ্ধার হওয়া আবদুর রহমান (৭০) জাজিরা উপজেলার ফকির মাহমুদ আকনকান্দি গ্রামের মৃত হাবিব খানের ছেলে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝর ইয়াসের প্রভাব ও বৈরী আবহাওয়ার কারণে সকল নৌ পথে নৌযান চলাচল বন্ধ করে রাখা হয়। ২৭ মে বৃহস্পতিবার বিকেলে পালেরচর ঘাট থেকে ১৮ জন যাত্রী নিয়ে একটি মাছ ধরার ট্রলার শিমুলিয়ার দিকে যাচ্ছিল। পথে পদ¥া নদীর পৈলান মোল্লাকান্দি এলাকায় গেলে ট্রলারটি ডুবে যায়।
স্থানীয়রা আগাইয়া এসে বিভিন্ন নৌযান দিয়ে ১২ জন যাত্রিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। এদের মধ্য থেকে অসুস্থ ছয় জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। নিখোঁজদের উদ্ধারের জন্য নৌ পুলিশ উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। সন্ধ্যা ৭টার দিকে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ট্রলার যাত্রি হাসান জানায়, বুহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে জাজিরার পালেরচর থেকে মাছ ধরার ট্রলারে শিমুলিয়া ঘাটে যাচ্ছিল তারা। পদ্মার ঢেউ ও প্রচন্ড বাতাস উপেক্ষা করে ছেড়ে যাওয়া ট্রলারটি কিছুদূর যাওয়ার পর উল্টে যায়।
নৌপুলিশ মাঝিরঘাট ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মৃদুল চন্দ্র কাপালিক বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ৮টা পর্যন্ত আমরা উদ্ধারকাজ চালিয়েছি। ঘণ অন্ধকার ও নদীতে প্রচন্ড স্রোত থাকায় উদ্ধারকাজ বন্ধ রাখা হয়। শুক্রবার সকাল থেকে পুনরায় উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে। ঢাকা থেকে ডুবুরি দল আসছে তারাও উদ্ধার কাজে অংশগ্রহণ করবে।
জাজিরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুজ্জামান ভূইয়া জানায়, ঘুর্নিঝর ইয়াসের প্রভাবে জাজিরা ঘাট থেকে সবধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছিল। কিছু লোক জাজিরার পুর্ব নাওডোবা ও পালের চর জিরো পয়েন্ট থেকে জেলে ট্রলারে করে পদ্মা নদী পার হয়ে মাওয়া শিমুলিয়া ঘাটে যাওয়ার চেষ্টা করে। ট্রলারটি তীর থেকে ছেড়ে নাওডোব ও পালেরচর মাঝামাঝি এলাকায় পদ্মা নদীতে গেলে ঢেউয়ের কবলে পরে ডুবে যায়। ২৮ মে শুক্রবার সকাল ৮াট থেকে জাজিরা নৌ-পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে ২য় দিনে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। আব্দুর রহমান আকন্দ (৭০) নামে এক বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ট্রলারে থাকা আরো ৪ জন নিখোঁজ রয়েছে। তবে এখনও নিখোঁজদের স্বজনের পক্ষ থেকে কেউ কোন দাবী জানায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।