শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২০ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ রজব ১৪৪৪ হিজরি
শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

জাজিরার সবজি বিদেশে রপ্তানির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

জাজিরার সবজি বিদেশে রপ্তানি বিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক মো: পারভেজ হাসান। ছবি-দৈনিক হুংকার।

পদ্মা সেতুর সফলতাকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে চলছে জারিরার কৃষি। পদ্মা সেতু বাস্তবায়নের ফলে ইতিমধ্যে জাজিরায় কৃষি উৎপাদন ১০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই অগ্রগতিকে গতিশীল করতে কৃষি বিভাগ কৃষকদের উৎপাদিত মানসম্পন্ন সবজি রপ্তানির উদ্যোগ গ্রহণ করেন।
জাজিরা উপজেলা কৃষি বিভাগের আয়োজনে কৃষি উদ্যোগক্তা, রপ্তানিকারক, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সরকারি কর্মকর্তা ও গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতিতে রপ্তানি বিষয়ক সমন্বিত সেমিনার ও রপ্তানি কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।
উপজেলার মুলনা ইউনিয়নের মিরাশার চাষী বাজারে মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) বেলা ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুল হাসান সোহেল এর সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ মতলুবর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোবারাক আলী সিকদার, পৌর মেয়র মোঃ ইদ্রিস মাদবর, উপরিচালক সেন্ট্রাল প্যাকিং হাউজ মোহাম্মদ রিাজুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপপরিচালক প্ল্যান্ট কোয়ারেন্টান ডিএই জুয়েল রানা, বাংলাদেশ এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর, এক্সপোর্টার গ্লোবাল ট্রেড লিংক এর প্রোপাইটর রাজিয়া সুলতানা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রপ্তানির সাথে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাগণ, কৃষি বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও গণমাধ্যমকর্মীসহ কৃষাণ-কৃষাণীগণ।
সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জামাল হোসেন। রপ্তানি কারকদের পক্ষ থেকে পাওয়ার পয়েন্টে রপ্তানি বিষয়ক তথ্য উপস্থাপন করেন গ্লোবাল ট্রেড লিংক এর সিইও কাওসার আহমেদ রুবেল।
সেমিনারে বক্তারা পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যাওয়া সবজি ভান্ডার খ্যাত জাজিরা তথা শরীয়তপুরের সবজি ও ফল কন্টাক্ট ফার্মির এর মাধ্যমে নিরাপদ সবজি ও ফল ইউকে ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে রপ্তানির লক্ষ্যে রপ্তানি যোগ্য নিরাপদ সবজি ও ফল উৎপাদন কৌশল সহ কৃষকদের করণীয় এবং সুযোগ সুবিধা বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। কৃষি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে উৎপাদনের প্রতি ক্ষেত্রে যেন মাননিয়ন্ত্রণ, সঠিকভাবে সর্টিং, গ্রেডিং এবং প্যাকেজিং করে ক্রেতাদের চাহিদাকে গুরুত্ব দিয়ে রপ্তানি পণ্যেরগুণগত মান ঠিক রেখে দেশের ভাবমূর্তি সমুজ্জল রাখতে উৎপাদনকারীদের প্রতি আহবান জানানো হয়। এর মাধ্যমে জারিরা সহ শরীয়তপুরের কৃষি পণ্য বিশ^ বাজারে বিস্তারের মাধ্যমে শরীয়তপুরের অগ্রগামী কৃষি জাতীয় অর্থনীতিতেও সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আশাবাদি আয়োজক ও রপ্তানিকারক প্রতিনিধি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।