শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সেনেরচরে জমির দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের বসত ঘর ভাংচুরের অভিযোগ

সেনেরচরে জমির দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের বসত ঘর ভাংচুর। ছবি-দৈনিক হুংকার।

জাজিরা উপজেলার সেনেরচরে চরধুপুরিয়া বালিয়া কান্দি গ্রামের জমি দখলের দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের বসত ঘরে ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। এই বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবার জাজিরা থানায় অভিযোগ করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন।
লিখিত অভিযোগ সূত্রেজানা গেছে, চরধুপুরিয়া বালিয়া কান্দি গ্রামের জালাল শেখের স্ত্রী ফুলজান বেগম। ফুলজান বেগম তার পৈত্রিক সম্পত্তি বিগত ২০ বছর ধরে স্থানীয় হারুন মাদবরের কাছে লিজ দিয়েছেন। হারুন মাদবর সেই জমিতে চাষাবাদ করে আসছেন। একই এলাকার মোতালেব মাদবর ও হালেম মাদবরের নেতৃত্বে দুই বছর ধরে সেই জমির মালিকানা দাবী করে হারুন মাদবরকে চাষাবাদে বাধা দেওয়া হয়। গত শুক্রবার বিকালে জালাল শেখ সেই জমিতে গেলে মোতালেব মাদবর লোকজন নিয়ে তাকে ধাওয়া করে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্যদের জানানো হয়। তারা ১৯ নভেম্বর রাতে বিরোধীয় বিষয়টি সমাধানে বসবেন বলে উভয় পক্ষকে জানিয়ে দেন। এই সংবাদ পেয়ে শনিবার সন্ধ্যা ৭টার সময় মোতালেব মাদবর লোকজন নিয়ে এসে জালাল মাদবরের বসত ঘরে হামলা চালায়। তখন কুপিয়ে ও পিটিয়ে ঘর ভাংচুর করে। পরে ঘরে ঢুকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।
জালাল শেখের পুত্রবধু পপি জানায়, বাড়িতে কোন পুরুষ ছিল না। শাশুড়ি ও সন্তানদের নিয়ে ঘরে ছিলাম। সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোতালেব মাদবর লোকজন নিয়ে এসে ঘর কুপিয়ে ও পিটিয়ে ভাংচুর করে। পরে ঘরে ঢুকে ৫ ভরি স্বর্ণ ও নগদ আড়াই লাখ টাকা নিয়ে যায়। আমি বাধা দেওয়ায় আমাকে কোপ মারে। কোপ পায়ে লেগে জখম হয়েছে। চিকিৎসার জন্যও আমাদের বের হতে দেয়নি।
জালাল শেখ বলেন, আমার স্ত্রীর নামের সম্পত্তি। দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখলে আছি। দুই বছর ধরে আমাদের সেই জমি ভোগ দখলে বাধা দিতেছে মোতালেব মাদবর। জমিতে যাওয়ায় আমাকে অপমান অপদস্ত করেছে। স্থানীয় শালিশ দরবারও মানে না। অন্যায় ভাবে আমার বাড়ি ভাংচুর ও লুট করেছে। আমি আইনী সহায়তা চাই।
লিজ চাষী হারুন মাদবর বলেন, আমি ২০ বছর ধরে জমি লিজে নিয়েছি। এই পর্যন্ত কোন সমস্যা হয়নি। তিন খন্দ ধরে আমি জমিতে চাষাবাদ করতে পারছি না। জমিতে গেলেই আমাকে মারধর ও মিথ্যা মামলার হুমকি দেয়। আমার অনেক লোকসান হয়ে গেছে।
এই বিষয়ে জাজিরা থানা পুলিশ উপপরিদর্শক জসিম উদ্দিন বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছি। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।