শনিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
শনিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুর পৌরসভার রাস্তা রক্ষা পিলার কিছুতেই রক্ষা হচ্ছে না

বার বার ভেঙ্গে ফেলা হয় শরীয়তপুর পৌরসভার এই রাস্তা রক্ষা পিলার। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর পৌরসভায় বিশ্বব্যাংক ও বাংলাদেশ সরকারের অথ্যায়নে শতকোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় ১০টি রাস্তা নির্মাণ করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে শরীয়তপুর পৌরসভা কর্তৃক বাস্তবায়িত রাস্তাগুলো প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতাদের নামে নামকরণ করে চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারী উদ্বোধন করেন। ভারী ও নিষিদ্ধ যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখতে ও রাস্তাগুলো দীর্ঘ্য স্থায়ী করতে শরীয়তপুর পৌরসভার পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। কিছুতেই ভারী ও নিষিদ্ধ যানবাহন চলাচল বন্ধ নিশ্চিত করতে পারছে না পৌর কর্তৃপক্ষ।
শরীয়তপুর পৌরসভা জানিয়েছে, পৌরসভার চৌরঙ্গী মোড় থেকে স্বর্ণঘোষ দিঘীর পাড় পর্যন্ত আলহাজ্ব এডভোকেট সুলতান হোসেন মিয়া সড়ক, পুলিশ বক্স হতে আটং বুড়িরহাট সড়ক জাতীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাক সড়ক, পালং উত্তর বাজার হতে কানার বাজার শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের সড়ক, পালং স্কুল রোড হতে প্রেমতলা সড়ক, বাসস্ট্যান্ড হতে কুরাশী বালাখানা পর্যন্ত সড়ক, বন বিভাগ সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাস্তা হতে আংগারিয়া গার্লস স্কুল ভায়া আংগারিয়া পুলিশ ফাঁড়ি সড়ক, পুলিশ লাইন হতে আংগারিয়া বাজার পর্যন্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব আলী হাওলাদার সড়ক, সাবেক কমিশনার আবুল হোসেন সরদার বাড়ী সড়ক, শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল হতে অনু চৌধুরীর বাড়ী সড়ক, পানি উন্নয়ন বোর্ড হতে স্বর্ণঘোষ-নীলকান্দি সড়ক ও পুলিশ লাইনের পূর্বদিক হতে ধানুকা বায়তুল আমান মসজিদ পর্যন্ত সড়ক শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। সড়ক গুলোর স্থায়িত্ব বাড়াতে ও ভারী এবং নিষিদ্ধ যানবাহন প্রবেশ ঠেকাতে প্রবেশদ্বারে প্রথমে হেভী লোহার তৈরী খুটি স্থাপন করা হয়। গাপনে সেই খুটি ভেঙ্গে ফেলে আবার ভারী ও নিষিদ্ধ যানবাহন চলাচল শুরু করে। পরবর্তীতে কংক্রিট ও সিমেন্টে তৈরী মজবুত খুটি স্থাপন করে সেখানে ভারী যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করে জরুরী বিজ্ঞপ্তি স্থাপন করা হয়। এবার তাও ভেঙ্গে ফেলেছে। এখন কংক্রিটের তৈরী খুটির সাথে গাছের গুড়ি পুতে আবার কংক্রিট ও সিমেন্ট দিয়ে জুড়ে দেয়া হয়েছে। এই শক্ত পিলার ভেঙ্গে ফেলা হলে অপরাধীদের চিহ্নিত করে ফৌজদারী আইনের আওতায় আনা হবে।
শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল বলেন, বর্ষার সময় এই সকল রাস্তায় ভারী যানবাহন চলাচল করলে রাস্তার ব্যাপক ক্ষতি হয়। রাস্তার ক্ষতি এড়াতে নবনির্মিত সকল রাস্তার প্রবেশদ্বারে প্রথমে লোহার পিলার ও পরবর্তীতে রড-কংক্রিট ও সিমেন্টের তৈরী পিলার স্থাপন করি। তাও ভেঙ্গে ফেলেছে। এবার রড-কংক্রিট ও সিমেন্টের তৈরী পিলারের পাশাপাশি শক্ত গাছের গুড়ি স্থাপন করা হয়েছে। এবার যদি এই পিলার কেউ ভেঙ্গে ফেলে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা করা হবে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।