শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি
শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুর পৌর এলাকায় সড়কের মাঝে গাছ, অপসারণের দাবি এলাকাবাসীর

Auto Draft
শরীয়তপুর পৌর এলাকায় সড়কের মাঝে গাছ, অপসারণের দাবি এলাকাবাসীর

শরীয়তপুর সদর উপজেলা ভূমি অফিসের পাশের সড়কের মাঝখানে বিরাট এক রেইনট্রি (কড়ই) গাছ থাকায় সাধারণ জনগণের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ওই সড়ক দিয়ে গাড়ি তো দুরের কথা এমনকি রিক্সা-মোটর সাইকেলও যেতে পারছেনা। একারণে, গাছটি অপসারণের দাবিতে ওই এলাকার বাসিন্দা জহিরুল ইসলাম জুয়েল সহ প্রায় ৪০ জন বাসিন্দার স্বাক্ষর করে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু’র সুপারিশক্রমে একটি লিখিত আবেদন করেছে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে।
আবেদনকারী ও ভূক্তভোগী জহিরুল ইসলাম জুয়েল জানান, অনেক বছর ধরে শরীয়তপুর পৌরসভার পুরাতন হাসপাতাল রোড (ভূমি অফিস সংলগ্ন) এলাকার সড়কের মাঝে একটি রেইনট্রি (কড়ই) গাছ থাকায় স্থানীয় প্রায় ৪০টি পরিবারের যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এখান দিয়ে এ্যাম্বুলেন্সে করে রোগী নিয়ে যাওয়া যাচ্ছে না। এর আগে কয়েকটি বাড়িতে আগুন লাগে তখন ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে না পারায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এমনকি ওই সড়ক দিয়ে রিক্সা-মোটর সাইকেলও ঠিকমতো যেতে পারছে না। তাই আরও বড় যে কোনো দুর্ঘটনা ঘটার আগেই ওই গাছটি অপসারণ করে সড়ক চলাচলের উপেযোগী করার দাবি এলাকাবাসীর। এ কারণে ওই এলাকার ৪০টি বাড়ির সদস্যদের স্বাক্ষরিত ও শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু’র সুপারিশ নিয়ে শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনদীপ ঘরাইয়ের বরাবর একটি লিখিত আবেদন করা হয়েছে।
এব্যাপারে ওই এলাকার মামুন, মাকসুদ, মাহমুদা, নাজমা সহ ভূক্তভোগী অনেকেই বলেন, ওই রেইনট্রি (কড়ই) গাছটির জন্য কোনো গাড়ি এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারে না। রিক্সাও আসতে পারে না। মাঝে মধ্যে কেউ অসুস্থ হলে এ্যাম্বুলেন্স আসতে পারে না রোগী নেওয়ার জন্য। এর আগে আগুন লেগে কয়েকজনের ঘরবাড়ি পুড়েছে। কিন্তু গাছটির কারণে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে পারে নাই। তাই আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে গাছটি অপসারণের দাবি জানাচ্ছি।
এব্যাপারে শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনদীপ ঘরাই বলেন, বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। অচিরেই জনদুর্ভোগ দূর করার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।