মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নাগেরপাড়ায় বিধবা নারীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

নাগেরপাড়ায় বিধবা নারীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ
নাগেরপাড়ায় বিধবা নারীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার নাগেরপাড়ায় এক বিধবা নারীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ফরহাদ মৃধার বিরুদ্ধে। ১৬ জুলাই শুক্রবার দুপুরে ছাগলের জন্য ঘাস আনতে গিয়ে ফরহাদ মৃধার দ্বারা ওই নারী ধর্ষণের চেষ্টার শিকার হয়। ওই নারীর সাথে থাকা ভাতিজির ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন আগাইয়া আসলে ধর্ষক ফরহাদ মৃধা পালিয়ে যায়। এই বিষয়ে গোসাইরহাট থানায় একটি অভিযোগ করেছেন ওই নারী।
লিখিত অভিযোগ, গোসাইরহাট থানা, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, গতকাল শুক্রবার দুপুরে ২৭ বছর বয়সী বিধবা ওই নারী তার ভাতিজিকে সাথে নিয়ে ছাগলের জন্য ঘাস আনতে পার্শ্ববর্তী ধইঞ্চা ক্ষেতে যায়। সেখানে নাগেরপাড়ার বড় কাচনা গ্রামের ফরহাদ মৃধা ওই বিধবা নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ওই নারীর সাথে থাকা ভাতিজির ডাক চিৎকারে বাড়ির লোকজন আগাইয়া গেলে ধর্ষণের চেষ্টাকারি ফরহাদ মৃধা পালিয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য নান্টু মৃধা বিষয়টি আপোষ মীমাংসার চেষ্টা করছেন।
ওই নরীর সাথে থাকা ভাতিজি জানায়, ফরহাদ মৃধা প্রথমে ফুফুকে ফেলে দিয়ে গায়ের উপর উঠে বসে। ফুফু আমাকে ডাক দিলে সে ফুফুর মুখ চেপে ধরে। আমি দৌঁড়ে বাড়িতে গিয়ে চিৎকার দিয়ে লোকজনকে জানাই। লোকজন আগাইয়া আসলে ফরহাদ মৃধা পালিয়ে যায়।
ভিকটিম জানায়, সে তিন বছর পূর্বে বিধবা হয়েছে। পিতার সংসারে থেকে সংসারের কাজকর্ম করে। ঘটনার দিন বাড়ির পাশে ধইঞ্চা ক্ষেতে ছাগলের জন্য ঘাস আনতে যায় সে। সেখানে ফরহাদ মৃধা তাকে জড়িয়ে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তখন তার ভাতিজি লোকজন ডেকে আনলে ফরহাদ পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় আমাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। ভয়ে থানায় অভিযোগ করেছে সে। পরবর্তীতে ইউপি সদস্য নান্টু মৃধা বিষয়টি আপোষ মীমাংসার আশ্বাস দিয়েছে।
ফরহাদ মৃধার বাড়িতে গিয়ে ঘর তালাবদ্ধ পাওয়া গেছে। এই সময় ফরহাদ মৃধার চাচী পরিচয়ে জাহাঙ্গীর মৃধার স্ত্রী বলেন, পুরুষ মানুষের এমন একটু আধটুকু দোষ থাকেই। তাই বলে থানা পুলিশ, সাংবাদিকদের জানাতে হবে।
আলী আকবর হাওলাদার, জাহিদুল ইসলামসহ স্থানীয়রা জানায়, ধর্ষকের পরিবার প্রভাবশালী। তাদের বিচার করার কেউ নাই। মেয়েটি বিধবা এবং অত্যন্ত গরীব। মেম্বারের কাছে আমরা ন্যায় বিচার দাবী করছি।
এই বিষয়ে ইউপি সদস্য নান্টু মৃধা বলেন, উভয় পক্ষই আমার নির্বাচনী এলাকার বাসিন্দা। আমার কাছে বিচার আসার পর থেকেই মীমাংসার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করি খুব শিঘ্রই বিষয়টি মীমাংসা করতে পারব।
গোসাইরহাট থানা অফিসার ইনচার্জ মোল্লা সোয়েব আলী বলেন, এই বিষয়ে ভিকটিম একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত চলছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।