মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভুক্তভোগীদের অভিযোগে শরীয়তপুরে জ্বিনের বাদশা আটক

ভুক্তভোগীদের অভিযোগে শরীয়তপুরে জ্বিনের বাদশা আটক
ভুক্তভোগীদের অভিযোগে শরীয়তপুরে জ্বিনের বাদশা আটক

শরীয়তপুরে এক প্রতারক জ্বিনের বাদশাকে আটক করেছে পালং থানা পুলিশ। ভুক্তভোগীদের অভিযোগের ভিত্তিতে রোববার তাকে আটক করা হয়। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ইউটিউব, ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে রোগী সংগ্রহ করে তাদের সাথে প্রত্যারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হতিয়ে নিতেন।
ভুক্তভোগীদের লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মুফতি সাইফুল ইসলাম ওরফে জ্বিন হুজুর (৩৭) যশোর জেলার বাসিন্দা। তিনি শরীয়তপুর পৌরসভার কোটাপাড়া এলাকায় একটি মাদরাসায় শিক্ষকতা করেন। পাশাপশি জ্বিনে ধরা রোগীদের চিকিৎসার নামে চেম্বার খুলে মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিল।
অভিযোগকারী গোসাইরহাট উপজেলার নাগেরপাড়া গ্রামের আব্দুস সালাম হাওলাদার জানায়, তিনি মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে চিকিৎসা গ্রহণ করছিলেন। পরবর্তীতে ইউটিউব চ্যানেলে জ্বিন হুজুর মুফতি সাইফুল ইসলামের সন্ধান পায় সে। পরে জ্বিন হুজুরের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে শরীয়তপুর পৌরসভার কোটাপাড়া জ্বিন হুজুরের চেম্বারে স্ত্রীরির সাথে আসে আব্দুস সালাম। রোগী আব্দুস সালাম প্রতিদিন জ্বিন হুজুরের কাছ থেকে চিকিৎসা নেওয়ার চুক্তিতে আবদ্ধ হয়। চুক্তি ছিল জ্বিন হুজুরকে প্রতি সপ্তাহে ৮ হাজার করে টাকা দিতে হবে। এই পর্যন্ত আব্দুস সালামের কাছ থেকে এক লক্ষ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় জ্বিন হুজুর। এর বিনিময়ে রোগীর কোন উন্নতি না হওয়ায় গত ৩ জুলাই সালামের স্ত্রী জ্বিন হুজুরের কাছে টাকা ফেরৎ চায়। তখন জ্বিন হুজুর কুফরির মাধ্যমে রোগী সালাম, তার স্ত্রী ও পরিবারকে আর্থিক ও মানসিক ভাবে বিভিন্ন ক্ষতি করার হুমকি দেয়। পরবর্তীতে রোগী আব্দুস সালাম পালং মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করে। অভিযোগের ভিত্তিতে জ্বিন হুজুরকে আটক করেছে পালং থানা পুলিশ।
অভিযুক্ত জ্বিন হুজুর মুফতি সাইফুল ইসলাম বলেন, আমার বাড়ি যশোর জেলায়। আমি জ্বিনে ধরা রোগীর চিকিৎসা করি। পাশাপশি কোটাপাড়া এলাকার একটা মদরাসায় চাকরী করি। আমি মানুষের সাথে কোন প্রতারণা করি না।
পালং মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ আক্তার হোসেন বলেন, এই পর্যায়ে অভিযোগকারীর সাথে অভিযুক্ত জ্বিনের বাদশার আপোষ হয়েছে। এই জ্বিনের বাদশার বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ রয়েছে। পরবর্তীতে তাকে পুনরায় আটক করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।