মঙ্গলবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি
মঙ্গলবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরে নারী চিকিৎসককে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় কথিত সাংবাদিকসহ তিনজন হাজতে

শরীয়তপুরে নারী চিকিৎসককে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় কথিত সাংবাদিকসহ তিনজন হাজতে
শরীয়তপুরে নারী চিকিৎসককে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় কথিত সাংবাদিকসহ তিনজন কে জেল হাজতে নেওয়া হচ্ছে। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের এক নারী চিকিৎসককে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় পালং মডেল থানায় মামলা হয়েছে। মামলার আসামীদের গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে পালং মডেল থানা পুলিশ। মামলার আসামীরা হলেন শরীয়তপুর পৌরসভার তুলাসার গ্রামের ডেন্টাল ডাক্তার শাহজাহান কবিরের ছেলে রিদওয়ান কবির (২৮), মালেক বেপারীর ছেলে আলিম বেপারী (৩৬) ও সদর উপজেলার চিতলিয়া গ্রামের ফজলুল হক মোল্যাল ছেলে বিল্লাল মোল্যা (৫১)। আদালত আসামীদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।
মামলার এজাহার সূত্রে জানাগেছে, গত ১৮ এপ্রিল শরীয়তপুর সদর রোডে অবস্থিত তামীম ফ্যামিলি ফুড সেন্টারে ওই নারী চিকিৎসক প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ক্রয় করতে যায়। সেখানে দ্রব্যমূলের অধিক মূল্য দাবী করলে ওই চিকিৎসকের সাথে তামীম ফ্যামিলি ফুড সেন্টারের বিক্রয় প্রতিনিধির সাথে বাকবিতন্ডা হয়। চিকিৎসক তার পরিচয় দেয়ার পরেও সেখানে থাকা আসামীরা সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ওই নারী চিকিৎসককে দোকান থেকে বের করে দিতে চেষ্টা করে। নারী চিকিৎসক মূল্য পরিশোধ করে রিক্সায় উঠে বসলে আসামীরা পুণরায় তার রিক্সার গতিরোধ করে। পরে সেখানে সকল আসামীরা ওই চিকিৎসকের ওড়না ধরে টানাটানি ও শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাতাহাতি করে শ্লীলতাহানী এবং যৌন হয়রানী করে। এক পর্যায়ে শ্লীলতাহানীর ঘটনা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে এবং মিডিয়ায় প্রকাশ করার হুমকি দেয় ওই নারী চিকিৎসককে। ওই নারী চিকিৎসকের চিৎকারে লোকজন আগাইয়া আসলে ভীতি প্রদর্শণ করে আসামীরা চলে যায়। এই ঘটনায় ১৯ এপ্রিল পালং মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।
পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আক্তার হোসেন বলেন, সদর হাসপাতালে দায়িত্বরত এক নারী চিকিৎসকের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা নেয়া হয়। পরবর্তীতে আসামীদের গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।