শনিবার, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে রজব, ১৪৪২ হিজরি
শনিবার, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গোসাইরহাটের নাগেরপাড়ায় মাকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ছেলে গ্রেফতার

গোসাইরহাটের নাগেরপাড়ায় মাকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ছেলে গ্রেফতার
গোসাইরহাটে ছেলের হাতে নিহত আনোয়ারা বেগমের স্বজনদের আহাজারি। ছবি-দৈনিক হুংকার।

গোসাইরহাট উপজেলার নাগের পাড়ায় জমি লিখে না দেয়ায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে মাকে হত্যা করেছে ছেলে। ২১ ফেব্রুয়ারী রবিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নাগেরপাড়া ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ছেলে আব্দুল মালেক (৪০) কে গ্রেফতার করেছে গোসাইরহাট থানা পুলিশ।
নিহতের স্বজন ও গোসাইরহাট থানা সূত্র জানায়, শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলার নাগেরপাড়া লক্ষীপুর গ্রামের ঢালীরহাট এলাকার আব্দুল মতিন খানের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৬০) মাগরিব নামাজ শেষে চা তৈরী করার জন্য রান্না ঘরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। তখন তার মেঝ ছেলে আব্দুল মালেক কুড়াল দিয়ে আনোয়ারা বেগমের মাথায় কোপ দেয়। স্থানীয় লোকজন ও আনোয়ারা বেগমের স্বজনরা আহত অবস্থায় তাকে গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
আনোয়ারা বেগমের মেয়ে লুৎফা বেগম বলেন, আমি ৪ মাস আগে দুবাই থেকে এসেছি। তখন আমার মা আমাকে কিছু জমি দিবে বলে। আমি নিতে চাইনি। কিন্তু আমার মেঝ ভাই কোথা থেকে জানি শুনে এসেছে যে আমাকে মা জমি দিয়ে দিছে। মাঝে মধ্যে মায়ের সাথে ব্যাপারটা নিয়ে ঝগড়া করত। আমি কিছু বলতাম না। কাল সন্ধ্যার দিকে মা আর আমি বসে চা খাচ্ছি। মেঝ ভাই মালেক ডাক দেয় মা কে। হঠাৎ মা আল্লাহ গো বলে চিৎকার দেয় আমি ছুটে যাই দেখি মায় মাটিতে পড়ে আছে। আমি ধরতে গেলে আমাকেও তেরে আসে মারার জন্য। কিন্তু আমার ছেলে ইমাম কুড়াল টা ধরাতে কোপ দিতে পারেনি। পরে মালেক আর আয়েশা পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় মালেককে স্থানীয়রা ধরে পুলিশের কাছে দেয়।
গোসাইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা সোহেব আলী জানান, জমি লিখে না দেয়ায় আনোয়ারা বেগম নামে এক মহিলাকে তার ছেলে মালেক কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এঘটনায় নিহতের অভিযুক্ত ছেলেকে আটক করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।