শনিবার, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে রজব, ১৪৪২ হিজরি
শনিবার, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

অন্তিম শয়নে শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বড়বোন ফাহিমা

অন্তিম শয়নে শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বড়বোন ফাহিমা
সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসনের চাচি ও শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদারের বড় বোন আকিমুন নাহার ফাহিমার জানাযা নামাজে উপস্থিতির একাংশ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

পারিবারিক কবরস্থানে অন্তিম শয়নে শায়িত হলেন শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এর বড়বোন আকিমুন নাহার ফাহিমা।
প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনার বেয়াই সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসনের চাচি আকিমুন নাহার বার্ধক্য জনিত কারণে ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃস্বাস ত্যাগ করেন।
২০ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় ফরিদপুর শহরের সাবেক মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসনের বাড়িতে নামাজের জানাযার পরে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি ১ ছেলে, ৩ মেয়ে, নাতী নাতনী সহ বহু আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।
ঐতিহ্যবাহী লাকার্তার সিকদার পরিরারের সন্তান ও ফরিদপুরের খন্দকার পরিবারে পুত্রবধু, শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদার এর বড়বোন ফাহিমা লাকার্তা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম ফজলুর রহমান সিকদার ছিলেন তৎকালি সময়ের বিশিষ্ট সমাজ সেবক।
মরহুমা আকিমুন নাহার ফাহিমার মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এমকেএম এনামুল হক শামীম এমপি, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু এমপি, শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক, জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান, পুলিশ সুপার এস.এম. আশরাফুজ্জামান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দিদারুল ইসলাম, শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, দৈনিক হুংকার সম্পাদক আলহাজ্ব হাবিবুর রহমানসহ শরীয়তপুর জেলার বিভিন্ন প্রশাসনের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ।

শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদারের বড় বোন আকিমুন নাহার ফাহিমার জানাযা নামাজ আলোচনায় পূর্ব বক্তব্য রাখছেন সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসনের। ছবি-দৈনিক হুংকার।

 


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।