সোমবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
সোমবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরে জাতীয় সমাজসেবা দিবস পালিত

শরীয়তপুরে জাতীয় সমাজসেবা দিবস পালিত
শরীয়তপুরে জাতীয় সমাজসেবা দিবস উপলক্ষে ঋণ গ্রহিতাদের হাতে চেক তুলে দিচ্ছেন অতিথিবৃন্দ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

ক্ষুদা ও দারিদ্রমুক্ত সমাজ বিনির্মাণে, সেবা ও সুযোগ প্রান্তজনে” এ প্রতিপাদ্য নিয়ে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় সমাজ সেবা দিবস-২০২১ পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ফয়জুল বারির সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ শামীম হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর হায়দার শাওন, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ও শরীয়তপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি অনল কুমার দে, সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ডাঃ সৈয়দা শাহিনুর নাজিয়া, মুক্তিযুদ্ধাদের প্রতিনিধি হাজি আবদুর রাজ্জাক সরদার। জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের রেজিষ্টেশন অফিসার উজ্জল মুন্সীর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ে ইউডি পিযুষ দত্ত, দৃষ্টি প্রতিবন্ধি ও তৃনমূল দৃষ্টি প্রতিবন্ধি কল্যান সমিতির সভাপতি মোঃ নাইম ইসলাম ও সম্পাদক আবদুল মালেক।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ শামীম হাসান বলেন, জাতির জনকের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠনের পর থেকে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের ব্যাপক উন্নয়ন ও জনকল্যাণ মুখী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলেছেন। সরকার সমাজের বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মানুষের জন্য, বিধবা, বয়স্ক, মুক্তিযুদ্ধাসহ পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য ৯টি ক্যাটাগরিতে ভাতা দিচ্ছে। যা অতিতে কোন সরকারই করেনি। আপনারা জানেন শুধু প্রধানমন্ত্রীই নয় তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুলও বিশ্বব্যাপি অটিজম বা অটিস্টিকদের নিয়ে কাজ করছে। তিনি সমাজ সেবা গ্রহিতাদের বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে বলেন, সমাজ সেবার কর্মকর্তারা মনে করেন পা বাড়িয়ে সেবা দিলে প্রতি ক্ষেত্রেই পূর্ণ মিলে’ এ মন্ত্রে দিক্ষিত হয়ে কাজ করবেন। প্রধান অতিথি বলেন, আমরা কানাডার মতো সরকার চাই কিন্তু সে দেশের জনগণের মতো হতে চাইনা। মনে রাখবেন ভাল কিছু পেতে হলে সবার আগে আমাদের ভার হতে হবে। বাংলাদেশের মধ্যে ১৮টি উপজেলা শতভাগ ভাতা কার্যক্রমের আওতায় এসেছে তার মধ্যে আমাদের শরীয়তপুর জেলার ৬ উপজেলাই শতভাগ ভাতা কার্যক্রমের আওতাভূক্ত হয়েছে।
আলোচনার সভার শেষে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের মাঝে সাদা ছড়ি, শারিরীক প্রতিবন্ধিদের মাঝে হুইল চেয়ার, ঋণ গ্রহিতা ও ভাতা ভোগীদের মাঝে চেক এবং নগদ টাকা বিতরণ করা হয়।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।