শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরের পুলিশের অভিযানে আরো ৭ মোবাইল চোর গ্রেফতার

শরীয়তপুরের পুলিশের অভিযানে আরো ৭ মোবাইল চোর গ্রেফতার
পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে মোবাইল চক্র আটক পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন পুলিশ সুপার এস.এম আশরাফুজ্জামান।

গত ৩০ অক্টোবর থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত শরীয়তপুর জেলা পলিশের ২টি টিম দেশের বিভিন্ন জেলায় অভিযান চালিয়ে ৩০টি মোবাইল সেট, ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা সহ চোর চক্রের আরো ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। ৭ নভেম্বর দুপুর ২টায় জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার এস.এম. আশরাফুজ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন অভিযানে নেতৃত্বদানকারী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস.এম মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গোসাইরহাট সার্কেল) তানভীর আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর হায়াদার শাওন, ডিআইও-১ আজহারুল ইসলাম, অভিযানে অংশগ্রহণকারী জেলা ডিবির ওসি সাইফুল আলম, এসআই এস.এম আতিক উল্যাহ, এসআই ডিবি আশ্রাফ।
পুলিশ সুপার বলেন, গত ৫ অক্টোবর রাতে শরীয়তপুর সদরের পালং উত্তর বাজারস্থ সেমন্ত ঘোষের মালিকানাধীন মডার্ন স্মার্ট গ্যালারী নামক মোবাইলের দোকান থেকে সংঘবদ্ধ চোরচক্র তালা কেটে দোকানে প্রবেশ করে ২৩ লক্ষ ২৪ হাজার ৯৮০ টাকা মূল্যের মোবাইল সেট নিয়ে যায়। এই চুরির ঘটনার সূত্র ধরে পালং মডেল থানার মামলা নং-৭ এর বর্ননামতে তদন্তকারী অফিসার নড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস.এম মিজানুর রহমান এর নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল আলম সহ চাঁদপুর, কুমিল্লা ও চট্টগ্রামে অভিযান চালিয়ে গত ১০ অক্টোবর ৭ আসামীকে গ্রেফতার করে। তাদের দেওয়া তথ্য মতে চুরি যাওয়া মোবাইল উদ্ধারের লক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস.এম মিজানুর রহমান এর নেতৃত্বে ডিবির ওসি সাইফুল আলম, পালং থানার অফিসার ইনজার্জ (তদন্ত) আতিক উল্যাহ, ডিবির এসআই আশ্রাফ সহ পুলিশের ২টি দল কুমিল্লা, চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন থানা, চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন এলাকা, রাঙ্গামাটি জেলার বিভিন্ন থানা অভিযান চালিয়ে চুরি যাওয়া ৩০টি মোবাইল সেট ও মোবাইল সেট বিক্রির ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা উদ্ধার করে। এ সময় কুমিল্লা জেলার মুরাদ নগর থানার বজলু মিয়ার ছেলে ইকবাল হোসেন (৩০), চট্টগ্রাম জেলার কর্নফুলী থানার শিকল বাহা গ্রামের সমশের আলম এর ছেলে আইয়ুব আলী (২৮), একই জেলার ফটিকছরি থানার দৌলতপুর গ্রামের আব্দুল মালেক এর ছেলে লোকমান (২৮), লোহাগড়া থানার খলিফাপাড়া গ্রামের আশ্রাফ মিয়ার ছেলে মিজানুর রহমান (২৬), রাঙ্গুনিয়া থানার চন্দ্রগোনা মিশন এলাকার কমল বৈদ্যের ছেলে তুষার বৈদ্য (২৫), ফটিকছরি থানার রশিদাবাদ গ্রামের মোঃ জালাল আহমেদ এর ছেলে মোঃ মিজানুর রহমান (১৯) ও হাটহাজারী থানার পশ্চিম দোলাই গ্রামের ইসমাইল তোরফদারের ছেলে শাহাবুদ্দিন ওরপে বেলাল তরফদার (২৫) কে গ্রেফতার করে। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মোবাইল চুরির কথা শিকার করেছে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।