বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দেশ ডিজিটাল হলে সোনার বাংলাদেশ হবে: জেলা প্রশাসক

দেশ ডিজিটাল হলে সোনার বাংলাদেশ হবে: জেলা প্রশাসক
ডিজিটাল সেবা কেন্দ্রের দশম বর্ষপূর্তি ও মজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান। ছবি-দৈনিক হুংকার।

ডিজিটাল সেন্টারের দশম বর্ষপূর্তি ও মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত “ই-সেবা ক্যাম্পেইন” পরিচালনায় উদ্যোক্তাদের ভূমিকা এবং আমাদের করনীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান বলেছেন ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে আমাদের দেশ উন্নত বাংলাদেশ হবে, দূর্নীতি মুক্ত দেশ হবে, ক্ষুদা মুক্ত দেশ হবে, সর্বোপরি সোনার বাংলাদেশ হবে। তিনি ৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে শরীয়তপুর জেলার ৬৫ ইউনিয়ন ও ৬ পৌরসভার ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের নিয়ে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শামীম হোসেন এর সভাপতিত্বে সভায় দেশ সেরা উদ্যোক্তা নরসিংদী জেলার আব্দুল মান্নান, সহকারী কমিশনার ও জেলা এটুআই এর পরিচালক খান সালমান হাবীব, জেলা পাসপোর্ট অফিসের উপ-সহকারী পরিচালক শেখ মাহাবুবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। সভায় জেলার ১২০ জন উদ্যোক্তা অংশ গ্রহন করেন। প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান বলেন, জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার পথে ক্ষুদা-দারিদ্রমুক্ত উন্নত বাংলাদেশ বির্নিমাণের জন্য আজ থেকে ১০ বছর পূর্বে এক যোগে দেশব্যাপী ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা করে। সারা বাংলাদেশের অনেক ডিজিটাল কেন্দ্রের উদ্যোক্তা সাফল্যের সাথে এগিয়ে গিয়েছেন। সেদিক থেকে আমাদের শরীয়তপুরের কোন উদ্যোক্তাই ততটা সাফল্য অর্জন করতে পারেনি। এসময় তিনি দেশ সেরা সফল উদ্যোক্তার একজন নরসিংদীর আব্দুল মান্নানকে দেখিয়ে বলেন, মান্নান ১০ বছরে নিজের উন্নয়নের মাধ্যমে ১ কোটি টাকার বিনিময়ে নিজের বাড়ী করছে।
অপর দিকে দেশে অনেক উদ্যোক্তা আছেন যারা সারা দিন পরে নিজে খাবারের টাকাও যোগাড় করতে পারেন না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সবাইকে উদ্যোক্তা তৈরীর মাধ্যমে আত্ম নির্ভর বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তরুন প্রজন্মকে একাজে সম্পৃক্ত করেছিলেন। অথচ তারা নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্ন থেকে সরে গিয়ে সরকারের চাকর হওয়ার জন্য আদালতে মামলা করেছে। দেশে প্রতি বছর যে পরিমান তরুন শিক্ষিত জনশক্তি বেড়িয়ে আসছে তাদের চাকুরী দেওয়ার মতো অবস্থা আমাদের দেশে নেই। আপনারা উদ্যোক্তা হলে আপনি অপর ব্যক্তিকে চাকুরী দিতে সক্ষম হবেন। এ স্বপ্ন পূরণের জন্য আপনাকে আমাকে কাজ করতে হবে। আমাদের সেবা কেন্দ্রে এলে সরকারের যে ২০টি প্রধান সেবা পাওয়া যায় সে সম্পর্কে এলাকায় ব্যাপক প্রচার করতে হবে। তাহলে আপনার চাহিদা বাড়বে। ব্যক্তি নিজে না জাগলে দেশ জাগবে না। মনে রাখবেন আপনার উন্নয়ন মানেই দেশের উন্নয়ন। সে লক্ষ নিয়ে চাকুরীর পিছনে না ঘুরে উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবেন। মনে রাখবেন মানুষ কখনো হারেনা। হয় জিতে না হয় শিখে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।