শনিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
শনিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুর জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাথে পুলিশ সুপারের মতবিনিময়

শরীয়তপুর জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাথে পুলিশ সুপারের মতবিনিময়
শরীয়তপুর জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাথে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখছেন পুলিশ সুপার এস.এম আশরাফুজ্জামান। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর পুলিশ সুপার এস.এম আশরাফুজ্জামান বলেছেন শরীয়তপুর জেলার মানুষ দীর্ঘ দিন ধরে তারা সাম্য ও সম্প্রীতির পরিচয় দিয়ে হিন্দু মুসলমান এক সাথে বসবাস করছে। এ জেলার মানুষ ধর্মভীরু তবে কেউই ধর্মান্ধ নয়। আমরা প্রত্যাশা করছি সম্প্রীতির এ ধারাবাহিকতায় আমরা এবারও আসন্ন দূর্গা উৎসব শন্তিপূর্ণ ভাবে সম্মিলিত ভাবে উদযাপন করতে সক্ষম হবো।
তিনি ৭ অক্টোবর বুধবার দুপুরে পুলিশ সুপার এর সম্মেলন কক্ষে শরীয়তপুর জেলা পূজা উদযাপন ও হিন্দু নেতৃবৃন্দের সাথে শারদীয় দুর্গা উৎসব ২০২০ উপলক্ষে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, এবারের পূজা পালন কেবল মাত্রই ধর্মীয় রীতি অনুসরণ করতে হবে। সেই সাথে জনস্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে সরকারের ১৩টি নির্দেশনা মানতে হবে। প্রতিটি পুজা মন্দিরে সিসি টিভি স্থাপন ব্যবস্থা করতে হবে, মন্দির কর্তৃপক্ষ থেকে স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করে নিরাপত্তা দায়িত্ব গ্রহন করতে হবে। স্বেচ্ছাসেবকদের কোটি, আর্মভ্যান্ড অথবা টুপির ব্যবস্থা করতে হবে। মন্দিরে প্রবেশকালে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানেটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। মন্দির এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা রাখতে হবে, অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা রাখতে হবে, পুলিশ, জরুরী সেবা, ফায়ার সার্ভিস সমূহের নাম্বার গুলো প্রকাশ্য স্থানে প্রদর্শন করে রাখতে হবে। পুজা মন্ডপ গুলো খোলামেলা রাখতে হবে, মন্ডপের ভিতরে ভির করা যাবেনা, প্রবেশ ও বাহিরের জন্য আলাদা ব্যবস্থা রাখতে হবে, প্রবেশ গেইটে নো-মাস্ক, নো-এন্ট্রি, ব্যানার সহ প্রবেশ মুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে, মন্দিরে কোন প্রকার সম্মিলিত আড়তি দেওয়া যাবেনা, কোন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাচ গান করা যাবেনা ও শোভাযাত্রা করা যাবেনা।
এসময় বক্তব্য রাখেন শরীয়তপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, জেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মুকুল চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক মানিক ব্যানার্জী, নড়িয়া উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি চন্দন ব্যার্নাজী, সদর উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমীর কিশোর দে। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর হায়দার শাওন, ডিএইও-১ আজহারুল ইসলাম সহ সকল থানা অফিসার ইনচার্জবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।