শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২০ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ রজব ১৪৪৪ হিজরি
শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

আংগারিয়ায় জমি দখলে বাধা দেওয়ায় নারীসহ দুইজনকে মারধর

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আংগারিয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার আসমা বেগম । ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়ায় জমি দখলে বাধা দেওয়ায় এক নারী ও তার স্বামীকে পিটিয়ে জখম করেছেন সন্ত্রাসীরা। শনিবার (২১ জানুয়ারী) সকাল সারে ৭টায় আংগারিয়া ইউনিয়নের চর কাশাভোগ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করেছে আংগারিয়া ফাড়ি পুলিশ। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত আসমা বেগম বলেন, তিনি আংগারিয়া ইউনিয়নের চর যাদবপুর গ্রামের সিরাজ সিকদারের স্ত্রী। তার ছেলে ইউরোপ প্রবাসে থাকে। ছেলের পাঠানো টাকায় একই ইউনিয়নের চর কাশাভোগ এলাকায় একটি নিচু জমি ক্রয় করেছেন। জমিতে বাড়ি করার জন্য ঠিকাদারের মাধ্যমে ভড়াটও করেছেন। শনিবার সকালে সেই জমিতে গেলে স্থানীয় মোফাজ্জেল ছৈয়াল, রেজাউল ছৈয়াল, সেলিম ছৈয়াল, রাজিব সরদার, বেলায়েত সরদার, সেহেরী বেগম সহ ১০-১৫ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আসমা বেগম ও তার স্বামী সিরাজ সিকদারের উপর হামলা চালায়। সিরাজ সিকদার পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও রক্ষা পায়নি আসমা বেগম। সেখানে তাকে গুরুতর আহত করা হয়।
আসমা বেগম আরো জানায়, হামলাকারীরা তাদের কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছিল। তাদের দাবী ৫০ লাখ টাকার জমি ক্রয় করেছি তাই তাদের ১০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। চাঁদা দিতে রাজি না থাকায় নগদ টাকা, মোবাইল ও স্বর্ণের চেইন নিয়েছে হামলাকারীরা। ঘটনার পর আংগারিয়া ফাড়ি পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বেলায়েত সরদারের ছেলেকে আটক করেছে।
আংগারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার ফকির বলেন, আসমা বেগম ও তার স্বামীর উপর যারা হামলা করেছে তারা এলাকার ত্রাস। তাদের নির্দিষ্ট কোন পেশা নাই। সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজীই তাদের পেশা। তারা টাকার জন্য সব ধরণের অপরাধ করতে পারে।
আংগারিয়া পুলিশ ফাড়ির উপ-পরিদর্শক আসলাম উদ্দিন বলেন, ভোরে চর কাশাভোগ এলাকায় মারামারির ঘটনা ঘটেছে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।