রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

প্রধান শিক্ষককে মামলা থেকে বাদ দেওয়ার দাবীতে মানববন্ধন

প্রধান শিক্ষককে মামলা থেকে বাদ দেওয়ার দাবীতে মানববন্ধন
প্রধান শিক্ষককে মামলা থেকে বাদ দেওয়ার দাবীতে মানববন্ধন। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার রুদ্রকরে দশম শ্রেণীর ছাত্রী আত্মহত্যার ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে পালং মডেল থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় সুবচনি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিনকে আসামী করা হয়েছে। মামলার আসামী থেকে প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিনের নাম বাদ দেওয়ার দাবীতে জেলা পুলিশের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মানববন্ধন করেছে শরীয়তপুর জেলা শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ।
শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জেলা শহরের আংগারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আনোয়ার কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়।
মানববন্ধ থেকে বক্তারা বলেন, অভিযোগ রয়েছে প্রধান শিক্ষক ওই ছাত্রীকে টিসি দিয়েছে তাই ক্ষোভে আত্মহত্যা করেছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা গেছে ওই ছাত্রীর একই শ্রেণির আল আমিনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। আল আমিনের মা ও ভাই এসে ওই ছাত্রীকে অপমান করে। পরে সে ছুটি নিয়ে বাড়ি গিয়ে আত্মহত্যা করেছে। এই ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের কোন দায়দায়িত্ব নাই। তাছাড়া নবম শ্রেণিতে নিবন্ধিত কোন ছাত্রীকে টিসি দেওয়ার কোন এখতিয়ার প্রধান শিক্ষকের নাই। এই বিষয়ে প্রধান শিক্ষককে ফাঁসানো হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনে অনুরোধ করব মামলা থেকে যেন প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিনকে বাদ দেওয়া হয়।
উল্লেখ্য, রুদ্রকর ইউনিয়নের সুবচনী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী আল আমিন তালুকদারের সাথে একই বিদ্যালয়ে পড়ার সুবাদে সুরভী আক্তারের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হলে মেয়েটিকে আল আমিনের মা ও বড় ভাই পারভেজ বিদ্যালয় বাউন্ডারির ভিতরে সহপাঠিদের সামনে জুতোপেটা করে। এক পর্যায়ে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লেও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিন কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় বাড়ি গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে মেয়েটি আত্মহত্যা করে। এঘটনায় প্রধান শিক্ষককেও আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে মামলার আসামী করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে প্রধান শিক্ষক পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।