শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

নড়িয়া-সখিপুরের ৩১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মান কাজ অনুমোদন

নড়িয়া-সখিপুরের ৩১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মান কাজ অনুমোদন

চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচী (পিইডিপি-৪) এবং চাহিদাভিত্তিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় উন্নয়ন প্রকল্প (১ম পর্যায়) এর আওতায় শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় ১২টি এবং নড়িয়া উপজেলায় ১৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভবন নির্মান কাজের অনুমোদন চুড়ান্ত হয়েছে। স্থানীয় সাংসদ ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীমের একান্ত প্রচেষ্টায় এসব বিদ্যালয়ে ভবন নির্মান কাজ অনুমোদন হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। একই সঙ্গে বিদ্যালয় গুলোতে ওয়াশ ব্লক নির্মান কাজেরও অনুমোদন হয়। ১৫ জুন প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. নূরুননবী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি পত্রের অনুলিপি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। প্রকল্প দুটির আওতায় দেশের বিভিন্ন জেলায় আরো ১৭৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভবন নির্মানের কাজ অনুমোদন হয়।

তবে দেশের সর্বমোট মোট ২০৫টি বিদ্যালয়ের মধ্যে শরীয়তপুরের নড়িয়া ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুরই ৩১টি বিদ্যালয়ের ভবন নির্মান কাজের অনুমোদন হয়েছে। ফলে ঐসব বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের মাঝে উচ্ছাস দেখা দিয়েছে। এক সাথে এসব অবহেলিত বিদ্যালয় গুলোতে ভবন নির্মান কাজ অনুমোদন করানোয় স্থানীয় সাংসদ ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে তারা।

এ ভবন নির্মানের ফলে নড়িয়া ও সখিপুরের চরাঞ্চল গুলোতে শিক্ষা ব্যবস্থা আরো উন্নত হয়ে উঠবে বলে আশা করছে সংশ্লিষ্টরা।

এ বিষয়ে স্থানীয় সাংসদ ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় এক যুগান্তকারী পরিবর্তন এনেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় আমার নির্বাচনী এলাকা নড়িয়া-সখিপুরের যে সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাকা ভবন নেই, এমন ৩১টি বিদ্যালয়ে পাকা ভবন নির্মান কাজের অনুমোদন করিয়েছি। অন্য যেসব বিদ্যালয় গুলো রয়েছে পর্যায়ক্রমে সে সকল বিদ্যালয়েও ভবন নির্মানের ব্যবস্থা করা হবে। তাছাড়া অনেক বিদ্যালয়ে বাউন্ডারী নির্মান কাজ চলছে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।