শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২ জিলহজ ১৪৪৩ হিজরি
শনিবার, ২ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং বাল্যবিবাহ রোধে মতবিনিময় সভা

Auto Draft
শরীয়তপুরে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং বাল্যবিবাহ রোধে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুরে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং বাল্যবিবাহ রোধ বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে সোমবার (৬ জুন) সকালে শরীয়তপুর সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান।
শরীয়তপুর জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক রাফিয়া ইকবাল এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শরীয়তপুর পৌরসভা মেয়র এ্যাড পারভেজ রহমান জন, গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ চেযারম্যান মোঃ ফজলুর রহমান ঢালী, জেলা রেজিষ্টার অমৃত লাল দে, জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক বিশ্বজিৎ বৈদ্য । ডামুড্য উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতিমা নাহিয়ান এর সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শরীয়তপুর জেলা বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির কোঅর্ডিনেটর মোঃ কবির উদ্দিন। বক্তব্য রাখেন জেলা নিকাহ রেজিষ্টার সমিতিরি সভাপতি মাওলানা মিজানুর রহমান, দৈনিক হুংকার এর নির্বাহী সম্পাদক এম. হারুন অর রশীদ, এসডিএস প্রতিনিধি খালেদা আক্তার।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান বলেন, নারীর ক্ষমতায়ন বর্তমান সরকারের অন্যতম অগ্রাধিকার এবং বাল্যবিবাহ নারীর ক্ষমতায়নের প্রধান অন্তরায়। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে একটি ভাল আইন বিদ্যমান থাকলেও বাংলাদেশে ৬৪ শতাংশ মেয়ের ১৮ বৎসর হওয়ার আগে বিয়ে হয়ে যায়। এটি জাতীয় জীবনের একটি বড় সমস্যা। দেশের জনসংখ্যার অর্ধেক নারীর যথাযথ উন্নয়ন না হলে জাতীয় উন্নয়ন সম্ভব নয়। বাল্যবিবাহ নারী উন্নয়নের বাধা। সরকার বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে অঙ্গীকারাবদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৩৫ সালের মধ্যে ১৮ বৎসরের নিচে বিয়ের সংখ্যা শুণ্যে নামিয়ে আনার ঘোষণা দিয়েছেন। এই লক্ষ অর্জন সরকার বাল্যবিবাহের কারন সমূহ চিহ্নিত করেছে এবং ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।