শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি
শুক্রবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরে ধর্ষণ মামলার আসামী মেয়র পুত্রকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড

শরীয়তপুরে ধর্ষণ মামলার আসামী মেয়র পুত্রকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড
রায় শেষে ধর্ষণ মামলার আসামী মাসুদ বেপারীকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ছবি-দৈনিক হুংকার।

ধর্ষণ মামলার আসামী জাজিরা পৌরসভার সাবেক মেয়র ইউনুছ বেপারীর ছেলে মাসুদ বেপারীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন শরীয়তপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আ, ছালাম খান। একই সাথে আসামীকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ডও দিয়েছেন। অপর আসামী শরীফ সরদারকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়েছে এই আদেশে। বুধবার (২৪ নভেম্বর) বেলা ১১টায় আসামী, রাষ্ট্রপক্ষ ও বাদীর (ভিকটিম) উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন বিচারক। শরীফ সরদারকে খালাস প্রদানে বাদী ও রাষ্ট্রপক্ষ বিক্ষুদ্ধ হয়েছেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে তারা উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানিয়েছেন।
বাদীপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট আজিজুর রহমান রোকন বলেন, আসামী মাসুদ বেপারী ও শরীফ সরদার ২০১৯ সালের ৩০ জুন এক কলেজছাত্রীকে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে জাজিরা থানায় মামলা করে। জাজিরা থানা পুলিশ তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। এই মামলার বাদী, ডাক্তার, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটসহ ১৩ জন সাক্ষী ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য প্রদান করে। আসামীদের পক্ষেও ৮ জন সাফাই সাক্ষি হাজির করা হয়। ট্রাইব্যুনাল সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে দীর্ঘ যুক্তিতর্ক শুনানীর পরে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে মাসুদ বেপারীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও অপর আসামী শরীফ সরদারকে বেকসুর খালাসের আদেশ দিয়েছেন।
ভিকটিমের পিতা হযরত কাজী বলেন, আসামীরা আমার কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে ভুল বুঝিয়ে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। মামলা পরবর্তী আসামী ও তাদের লোকজন দ্বারা আমি ও আমার পরিবার অনেক নির্যাতিত হয়েছি। আমরা থানায়ও যেতে পারিনি। আজ সেই মামলার আসামী মাসুদকে ট্রাইব্যুনাল সর্বোচ্চ সাঁজা দিয়েছে। অপর আসামী শরীফকে খালাস দেয়ায় আমি বিক্ষুদ্ধ হয়েছি। এই আদেশের বিরুদ্ধে আমি উচ্চ আদালতে আপীল করব।
আসামী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট কামরুজ্জামান নজরুল বলেন, আমরা ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছি। এই আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাব।
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি এডভোকেট মির্জা হজরত আলী বলেন, ট্রাইব্যুনালে এই মামলার বাদী, পুলিশ, ডাক্তার, ম্যাজিস্ট্রেটসহ ১৩ জন সাক্ষ্য প্রদান করেছে। দীর্ঘ শুনানীর পর আজ ট্রাইব্যুনাল রায় দিয়েছেন। আসামী শরীফ সরদারকে খালাস দেয়ায় রাষ্ট্রপক্ষ বিক্ষুদ্ধ। বাদীকে ন্যায় বিচারের স্বার্থে উচ্চ আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দিব।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।