মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নড়িয়ায় পুলিশের হাতে দুই প্রতারক গ্রেফতার

নড়িয়ায় পুলিশের হাতে দুই প্রতারক গ্রেফতার
নড়িয়া থানা পুলিশের হাতে আটক প্রতারক চক্রের দুই সদস্য। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় নকল সোনার কয়েন বিক্রির নামে প্রতারণা করার সময় সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের ২ সদস্যকে আটক করেছে নড়িয়া থানা পুলিশ। আটকৃতরা নজরুল তালুকদার ও লিটন সিকদার। তাদের কাছ থেকে ২ আনা স্বর্ণের একটি কয়েনসহ ৩০০ পিচ তামার কয়েন জব্দ করা হয়েছে।
জানা যায়, রবিবার বেলা ১টার দিকে নড়িয়া ব্রীজের উত্তর পাশে প্রতারকরা জাজিরা উপজেলা বিলাশপুরের দেওয়ান বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম আনোয়ার হোসেনের সাথে প্রতারণা করে নকল সোনা বিক্রি করার সময় তারা গ্রেফতার হয়। আনোয়ার হোসেনকে স্বর্ণ দেখানোর জন্য জাজিরা থেকে নড়িয়া ব্রীজের নিচে নিয়ে যায়। ইমাম আনোয়ার হোসেন নকল সোনা দেখে চিনতে পেরে চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন এসে তাদেরকে আটক করে নড়িয়া থানা পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে তাদের গ্রেফতার করেন।
প্রতারক চক্রের সদস্য নজরুল তালুকদার গোপালগঞ্জ জেলার মোখছেদপুর থানার ভাওন ডাঙ্গা গ্রামের মৃত ইব্রাহিম তালুকদারের ছেলে ও লিটন সিকদার একই উপজেলার বড়ইহাট গ্রামের মৃত বারু সিকদারের ছেলে বলে জানাগেছে।
মসজিদের ইমাম আনোয়ার হোসেন জানান, আমি মসজিদে বসেছিলাম এমন সময় ১ জন লোক এসে আমাকে সালাম দিয়ে বলেন কেমন আছি, আমার সাথে পরিচিত হয়ে আমার মোবাইল নম্বর নিয়ে যান। এর পরের দিন আমাকে ফোন করে বলেন তাদের এক লোক কতোগুলো সোনার কয়েন পাইছে সেই গুলি অল্প দামে বিক্রি করবো তার কাছে তেমন টাকা নাই তাই আমাকে তার সাথে ভাগে কয়েন কিনার জন্য বলে। আমি রাজি হয়ে তার সাথে সোনার কয়েন দেখতে নড়িয়া ব্রীজের নিচে নদীর পারে যাই। সোনার কয়েন দেখে সন্দেহ হলে তাদের ঝাপটিয়ে ধরে মানুষ ডাক দেই মানুষ এসে তাদের ধরে পুলিশকে খবর দেয়।
এবিষয়ে নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অবনি শংকর বলেন, আমরা সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের ২ জন সদস্য কে মসজিদের ইমামের সাথে প্রতারণা করার সময় গ্রেফতার করছি। তারা শুধু এই জেলায় না সারা বাংলাদেশেই তাদের এই প্রতারণা কার্যক্রম করে থাকেন। তাদের সাথে আরো কারা কারা জড়িত আছে তা জানার জন্য আসামীদের জিজ্ঞেস করবো। এব্যাপারে মসজিদের ইমাম আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে প্রতারক ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। প্রতারকদের কাছে প্রতারণায় ব্যবহৃত ১টি দুই আনা ওজনের সোনার কয়েন ও ৩০০টি ভুয়া তামার কয়েন জব্দ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।