মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পূর্বশত্রুতার জেরে নড়িয়ায় যুবককে কুপিয়ে জখম, আতংকে পরিবাব

পূর্বশত্রুতার জেরে নড়িয়ায় যুবককে কুপিয়ে জখম, আতংকে পরিবাব
সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত আল আমিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ছবি-দৈনিক হুংকার।

পূর্বশত্রুতার জের ধরে নড়িয়া উপজেলা শাওড়া গ্রামে গত ৩০ মে রাত ৯টায় আল অমিন মাদবর নামে এক যুবককে ধারালো ছেনদা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্নক জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। মৃত ভেবে সন্ত্রাসীরা আল আমিনকে পাশের কীর্তিনাশা নদীতে ফেলে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।
এ বিষয়ে গত ৪ জুন শুক্রবার রাতে আহত আল আমিনের ভাই ইলিয়াস মাদবর বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা পরবর্তী সন্ত্রাসীদের ভয়ে আতংকে রয়েছে আহত আল আমিনের পরিবারটি।
মামলার বিবরণ ও নড়িয়া থানা সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার শাওড়া এলাকার আনোয়ার মাদবরের সঙ্গে একই এলাকার সেলিম মাদবরের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। তার জের ধরে গত বৃহস্পতিবার রাতে শাওড়া গ্রামের পুরাতন বাড়ি থেকে আনোয়র হোসেন মাদবরের ছেলে আল আমিন মাদবর (২৯) শাওড়ার ইটভাটা সংলগ্ন নতুন বাড়িতে যাওয়ার পথে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মৃত ভেবে কীর্তিনাশা নদীর পাশে ফেলে যায় সেলিম মাদবর ও তার লোকজন। স্থানীয় লোকজন আল আমিনকে উদ্ধার করে প্রথমে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরবর্তীতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
আহত আল-আমিন মাদবরের বাবা আনোয়র হোসেন মাদবর বলেন, আমার সাথে বিরোধের জের ধরে আসামী সেলিম মাদবর ও তার লোকজন আমার ছেলেকে কুপিয়ে মারাত্নক আহত করেছে। আমি এর বিচার চাই।
নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অবনী শংকর কর বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।