মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কাঠালবাড়ি ফেরীঘাটে নিহত আনছুরের পরিবারের পাশে জেলা প্রশাসক

Auto Draft
কাঠালবাড়ি ফেরীঘাটে নিহত আনছুরের পরিবারকে নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়ন্তী রূপা রায় জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে সহায়তা হিসেবে গাভী দিচ্ছেন। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে কাঠালবাড়ি ফেরীঘাটে নিহত আনছুর এর পরিবারকে একটি গাভী ও গোখাদ্য সহায়তা দিয়েছে নড়িয়া উপজেলা প্রশাসন। ২৫ মে (মঙ্গলবার) নিহতের পরিবারে হাতে সহায়তা তুলে দেওয়া হয়।
উল্লেখ্য গত ১২ মে নড়িয়া উপজেলার মোক্তারেরচর ইউনিয়নে গিয়াস উদ্দিন মাদবরের ছেলে আনছুর মাদবর মাওয়া-কাঠালবাড়ি ঘাটে ফেরী থেকে নামতে গিয়ে দুর্ঘটনায় নিহত হয়। পরিবারের উপার্জনক্ষম একমাত্র ছেলে আনছুর মাদবর মৃত্যুবরণ করায় পরিবারটি অসহায় হয়ে পরেছে। সংবাদটি শোনার পর শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান উপজেলা প্রশাসনকে পরিবারটির পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেন।
জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়ন্ত্রী রূপা রায় নিহতের পারিবারের সাথে যোগাযোগ করে তাদের চাহিদা মত স্থায়ী আত্ন-কর্মসংস্থানের জন্য একটি গাভী সহায়তা দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়ন্তি রূপা রায় নিহতে পিতা গিয়াস উদ্দিন মাদবর এর নিকট একটি গাভী ও গো-খাদ্য প্রদান করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মোরশেদুল ইসলাম, নড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ অবণী শংকর কুন্ডু, শরীয়তপুর, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শাহাবুদ্দিন মিয়া, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিশ্বজিৎ রায়, উপজেলা প্রকল্প বাস্থবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আহাদী হোসেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, সংসারে একমাত্র উপার্জনকারীর মৃত্যুতে পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে তা কোন দিনই পুরণ হবার নয়। তার পরেও আমরা তাদের পাশে এসে সাথে সমব্যাঁথি হয়েছি। এ জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানায় মাননীয় জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান মহোদয় কে যার নির্দেশনায় ও উৎসাহে উপজেলা প্রশাসন একটি অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে সহায়তা করতে সক্ষম হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।