মঙ্গলবার, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ই রজব, ১৪৪২ হিজরি
মঙ্গলবার, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারনায় মাঠে

নড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারনায় মাঠে

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে নড়িয়া পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রস্ততি নিতে শুরু করছে। এ পৌরসভা দ্বিতীয় শ্রেনীর পৌরসভা। এখানে ভোটার রয়েছে প্রায় ২২ হাজারের। ১ নং ওয়ার্ডে ভোটার প্রায় ৩ হাজার একশত। সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। হিসাব মতে চলতি বছরের শেষের দিকে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।
ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, নড়িয়া পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের নির্বাচনে দলীয় সমর্থন পেতে প্রার্থীরা দৌড়ঝাপ শুরু করে দিয়েছে। তারা বিভিন্ন দিবসে ব্যানার ফ্যাস্টুন লাগিয়ে শুেেভচ্ছা বিনিময় করে।
স্থানীয় নেতাদের আর্শীবাদ পেতে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন নেতা কর্মীরা। আর স্থানীয় নেতাদের সমর্থন পেতে বাড়িয়ে দিয়েছেন সাংগঠনিক তৎপরতার পাশাপাশি নেতাদের ছবি দিয়ে ব্যানার ফেষ্টুনে ভরে গেছে পৌর এলাকা।
সম্ভাব্য প্রার্থী হলেন বর্তমান কাউন্সিলর আবুল বাশার ফকির, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা বিল্লাল সিকদার, ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ বাবুল ছৈয়াল, সাবেক ছাত্রনেতা জসিম ছৈয়াল, ১ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মোঃ শাহীন খান।
বর্তমান কাউন্সিলর আবুল বাশার ফকির বলেন, আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকার অনেক কাজ করেছি। যোগাযোগ ব্যাবস্থার উন্নয়ন করেছি। বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধি ভাতা শতভাগ করেছি। জলাবদ্ধতা নিরসনের কাজ করেছি। কিছুটা বাকী আছে আশাকরি আমাকে পুনরায় সুযোগ দেয় তাহলে প্রথমেই আমি জলাবদ্ধতা সম্পূর্ন নিরসন করবো। সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তুলবো।
বাবুল ছৈয়াল বলেন, নড়িয়া পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড একটি গুরুত্বপূর্ন ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডে উপজেলা অফিস, থানা ও পৌরসভা কার্যালয়। ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের দায়িত্ব অনেক। আশাকরি আমাকে জনগন ভোট দিয়ে বিজয়ী করলে ১ নং ওয়ার্ডকে একটি আধুনিক ওয়ার্ডে রুপান্তিত করবো। প্রথমেই জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করবো। এলাকা মাদকমুক্ত রাখবো। বিশেষ করে এলাকায় ইয়াবা ব্যাপক তা নিয়ন্ত্রন করবো। এ ছাড়া রাস্তার সাথে ড্রেন, পরিস্কার পরিছন্নতা বজায় রাখবো।
পৌর আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ বিল্লাল সিকদার বলেন, আমি ছাত্র জীবন থেকে আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হয়ে কাজ করেছি। করোনা মহামারি দুর্যোগে কর্মহীন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। ১ নং ওয়ার্ডের প্রতিটি ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী, হাত দোয়ার সাবান ও মাস্ক বিতরণকরি। পবিত্র ঈদুল আযহায় অসহায় পরিবারে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করি। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা নিজ অর্থায়নে সংস্কার করেছি। আমি নির্বাচিত হলে এলাকার রাস্তাঘাট, জলাবদ্ধতা দুরীকরণে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করবো। বিশেষ করে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তুলবো। ১ নং ওয়ার্ডের প্রতিটি রাস্তায় সোডিয়াম বাতি দিব। দল আমাকে সমর্থন দিলে আমি ইনশাআল্লাহ্ বিপুল ভোটে বিজয়ী হবো।
সাবেক ছাত্রনেতা জসিম ছৈয়াল বলেন, প্রথম লক্ষ হবে এলাকাকে জলাবদ্ধতা নিরসন করার জন্য প্রতিটি রাস্তার সাথে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা। যোগাযোগ ব্যাবস্থা উন্নত করবো। প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে কাজ করবো। সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সুন্দর সমাজ গড়বো।
১ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শাহীন খান বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসন করাই আমার প্রথম লক্ষ, মাদকমুক্ত, সন্ত্রাস মুক্ত সমাজ গড়বো, শিক্ষা বিস্তারে ঝড়ে পড়া শিশুর বিদ্যালয় মুখি করবো। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নতকরণ।
স্থানীয়রা বলেন, আমরা এমন একজন কাউন্সিলর চাই যে আমাদের সকল সমস্যা সমাধান করবে। যেমন জলাবদ্ধতা নিরসন, রাস্তার সাথে ড্রেনেজ ব্যবস্থা যাতে বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতা না হয়।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।