শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

নড়িয়ায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ককটেল বিস্ফোরণ, পুলিশের ফাঁকা গুলি

নড়িয়ায় আওয়ামলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ককটেল বিস্ফোরণ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

নড়িয়া বাজারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এই সময় শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। নড়িয়া থানা পুলিশ ৩৫ রাউন্ড শটগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ে এক ঘন্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে ২ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। এই বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ অক্টোবর শরীয়তপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে জেলা পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে নড়িয়া সরকারি কালেজের সাবেক ভিপি মোস্তফা ও আওয়ামীলীগ নেতা ইউনুস শেখ সদস্য প্রার্থী হয়ে উভয়ই পরাজয় বরণ করেন। সেই থেকে এই দুই প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। সেই বিরোধের জের ও উপজেলা শহরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে নতুন করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। তখন উভয় পক্ষ শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়।
এই বিষয়ে ভিপি মোস্তফা বলেন, পূর্বে থেকেই আমাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছিল। আমার সমর্থকরা বুধবার সন্ধ্যায় নড়িয়া বাজারে গেলে তাদের উপর হামলা চালায়। ঘটনার পর থেকে ইউনুছ শেখের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার মতামত ব্যক্ত করা গেল না।
নড়িয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভিপি মোস্তফা ও ইউনুছ শেখের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষ ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শর্টগানের ৩৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ব্যবহার করা হয়। এই সময় দুজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এঘটনায় মামলা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।