বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ডামুড্যা উপজেলা বিএনপির অভিভাবকের চীরবিদায়

Auto Draft
ডামুড্যা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি মরহুম ফললুর করিম মিয়ার প্রথম জানাজার একাংশ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সহসভাপতি, ডামুড্যা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম মিয়াকে দুই দফা জানাজা শেষে পিতামাতার পাশে পারিবারিক কবরস্থানে অন্তিম শয়নে শায়িত করা হয়।
মরহুম ফজলুল করিম মিয়ার প্রথম জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয় ডামুড্যা উপজেলা পরিষদ মসজিদ মাঠে। দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয় ডামুড্যা উপজেলার ধনই গ্রামে।
বুধবার (১১ আগস্ট) সকাল থেকেই মরহুমের স্বজন, সাথী সারথি ছাড়াও বিএনপি ও এর সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা ডামুড্যা উপজেলা কোর্ট মসজিদ মাঠে জড়ো হতে থাকেন। সকাল সাড়ে ৮টায় মরহুম ফজলুল করিম মিয়ার মরদেহ নিয়ে আসা হয় উপজেলা কোর্ট মসজিদ মাঠে। এর পর সকাল সাড়ে ৯ টায় প্রথম জানাজার পরে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় নিজ এলাকা ধনই মাদ্রাসা মাঠে। সেখানে সকাল সাড়ে ১০টায় তার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
জানাজা নামাজ শুরুর পূর্বে মরহুম ফজলুল করিম মিয়ার রুহের কামনা করে বক্তব্য রাখেন মরহুমের ভাতিজা ও শরীয়তপুর জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক, আহমেদ গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাঈদ আহমদ আসলাম, শরীয়তপুর জেলা জামায়াত ইসলামীর আমির মাওলানা খলিলুর রহমান, জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি সিরাজুল হক মোল্লা, ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির বাচ্চু ছৈয়াল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বাবলু সিকদার, পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল, যুবলীগ সভাপতি বিএম সাত্তার, গোসাইরহাট উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোবারক ঢালি, জেলা বিএনপি নেতা আঃ মজিদ মাদবর, ভেদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বিএম মোস্তফা, ডামুড্যা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক, এডভোকেট শাহাদাত হোসেন, পৌরসভা বিএনপির সভাপতি ভারপ্রাপ্ত আব্দুর রাজ্জাক মাঝি সহ বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল সহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
এর পরে প্রিয়নেতার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিএনপি, যুবলদল, ছাত্রদলসহ এর অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এরপূর্বে শরীয়তপুর-৩ অসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাহিম রাজ্জাক এর পক্ষ থেকে ডামুড্যা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ফুলেল শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। অভিভাবক হারানোর বেদনায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের কান্নায় এ সময় এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।
উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) সকাল ১০টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রবীণ রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব ফজলুল করিম মিয়া। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৮১ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র , ১ কন্যা সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী আত্মীয় স্বজন বন্ধুবান্ধব ও সহযোদ্ধা সহকর্মী রেখে গেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।