বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি
বুধবার, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

১৪ বছর নৌকায় বসবাসকারী গোলাপী বেগমের গৃহে প্রবেশ

১৪ বছর নৌকায় বসবাসকারী গোলাপী বেগমের গৃহে প্রবেশ
গোলাপী বেগমকে ঘরে উঠিয়ে দিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান। ছবি-দৈনিক হুংকার।

১৪ বছর ধরে মা গোলাপী (৯৫) কে নিয়ে নৌকায় থাকতেন নুরু মিয়া (৫৩)। মায়ের জন্য স্ত্রীর সাথে নুরু মিয়ার সম্পর্ক ভালো ছিল না। গত এপ্রিলে ‘১৪ বছর মা-ছেলের নৌকায় বসবাস’ শিরোনামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসন সহ উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসে গৃহহীন মা-ছেলের নৌকায় জীবনযাপনের বিষয়টি। মা গোলাপী ও ছেলে নুরু মিয়া শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার পূর্ব ডামুড্যার বাসিন্দা ছিলেন।
মুজিববর্ষে মা গোলাপী ও ছেলে নুরু মিয়ার জন্য ঘর বরাদ্দ দেন জেলা প্রশাসক। গত ২০ জুন সারাদেশে একযোগে মুজিববর্ষের ঘর বিতরণ অনুষ্ঠান থেকে গোলাপী ও নুরু মিয়াকে একটি ঘর বুঝিয়ে দেয়া হয়। একই সাথে জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান গোলাপীকে ঘরের আসবাবপত্র সহ দশ দিনের খাবারও বুঝিয়ে দেন।
১৩ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা দারুল আমান ইউনিয়নে গোলাপীর সংসার দেখতে যান জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান। এসময় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে তার হাতে তুলেদেন ঘরের আসবাবপত্র, তৈজসপত্র ও খাদ্য সামগ্রী।
এ সময় ডামুড্যা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাদিকুর রহমান সবুজ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মাঝি, পৌর মেয়র রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) তাহমিনা আক্তার চৌধুরী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী কাজী রিয়েল, দারুল আমান ইউপি চেয়ারম্যান মোক্তার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।
ঘর পেয়ে গোলাপী বেগম বলেন, আমাদের ভাগ্যে ছিল বলেই আজ ডিসি স্যার আমাদের দেখতে এসেছে। আসার সময় আমাদের জন্য খাদ্যসামগ্রী, আসবাবপত্র, আলমিরা, আলনা, খাট, ফ্যান, গ্যাস ও চুলা নিয়ে আসেন। আমি ডিসি স্যার ও প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণ ভরে দোয়া করি।
জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার নিয়ে গোলাপী বেগমের বাড়িতে মেহমান হিসেবে এসেছি। গোলাপী বেগম ও নুরু মিয়া ১৪ বছর ধরে নৌকায় বসবাস করে আসছেন। তাদের একটি সংগ্রামী জীবন যুদ্ধের কাহিনী। বাংলাদেশের প্রায় সকল মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশ হয়েছে এই গোলাপীকে নিয়ে। জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে পজিটিভ সংবাদ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর ভিশন কে বাস্তবায়নে কাজ করতে চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।