মঙ্গলবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি
মঙ্গলবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ডামুড্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

ডামুড্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা
ডামুড্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

প্রেমিকার ওপর অভিমান করে আল আমিন ঢালী (২৪) নামের এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। শনিবার রাত ১১টার দিকে ডামুড্যা পৌরসভার দক্ষিন ডামুড্যা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এর পূর্বে আল আমিন নিজের ফেসবুকে অভিমানের বিবরণ লিখে গেছেন। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। এই বিষয়ে ডামুড্যা থানায় একটি মামলা হয়েছে।
পারিবারিক, স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, শরীয়তপুরের ডামুড্যা পৌরসভার দক্ষিন ডামুড্যা গ্রামের আলাউদ্দিন ঢালীর ছেলে আল আমিন। একটি মেয়ের সাথে আল আমিনের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। হঠাৎ তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কে টানাপরেন হয়। প্রেমিকার সাথে অভিমান করেই আল আমিন আত্মহত্যা করে।
আল আমিনের মা মরিয়ম বেগম জানায়, তার একমাত্র ছেলে আল আমিন। তার ছেলেই সংসার চালাত। এই সংসারে আল আমিনের মায়ের আর কেউ রইল না। শনিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ফোন করে মাকে বাসস্ট্যান্ড যেতে বলে। ছেলের ফোন পেয়ে সে বাসস্ট্যান্ডে যায়। সেখানে ছেলেকে না পেয়ে বাড়ি ফিরে এসে ঘরের আড়ার সাথে ছেলেকে ঝুঁলে থাকতে দেখে।
আল আমিনের বন্ধুরা জানায়, আল আমিন একটি মেয়েকে খুব ভালোবাসত। কিন্তু ওদের মধ্যে কি হয়েছে তা জানি না। শুধু জানি ওরা ভালোবাসা প্রমাণ নিয়ে মাঝেমধ্যেই ঝগড়া করত। শুক্রবার ফেসবুকে দুইটা স্ট্যাটাস দিয়েছিল।
ডামুড্যা থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, রাতে আল আমিন নামের এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এই ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
নিহতের ফেসবুকের স্ট্যাটাস, বাজিতে হেরে যেয়ে আজ তোমাকে জিতিয়ে দিয়ে গেলাম। সয্য করতে পারছিলাম না নিজের ভিতরের কষ্ট গুলো। তোমার জন্য জীবন ও দিতে পারি আজকে প্রমান করে দিয়ে গেলাম। ও বলেছিল তোমাকে ও সব থেকে বেশি ভালোবাসে কিন্তু না আমি ছারা কেউ এতটা ভালোবাসে না তোমাকে বাসবে না কেউ। হাফসা কোন দিন কষ্ট পেও না যে তুমি জানলে হয়তো আর আমি কিছু করতে পারতাম না চলে যেতে পারতাম না কষ্ট পেও না। তুমি একদিন অনেক বড় হবে পরিবারের সবাই তোমাকে অনেক ভালোবাসবে সয্য করো ফল পাবে। মাফ করে দিছ বন্ধু আজ তুই হাফসাকে ভালোবাসতি জানতাম না ওর জন্য তুই পাগল জানতাম না। তোর বাজিতে আজ বন্ধুত্ব ভালোবাসা হেরে যেয়ে ও জিতিয়ে রেখে গেলাম। সবাইকে বলছি আমার হাফসাকে দেখে রেখো আ….ফ এর থেকে দূরে রেখো হাফসার ক্ষতি করবে। আমার হাফসার কোন দোষ নেই ও কিছু জানে না কেউ ওকে দোষ দিয়েন না ও খুব ভালো মেয়ে কোন ছেলের দিক তাকিয়ে কথা বলে না ও খুব ভালো। সবার কাছে অনুরোধ আমার হাফসাকে দূরে রেখো অনেক কথাই বলার ছিল জানানোর ছিল কিন্তু সুযোগ পায়নি আর কারোর নাম বলার সাহস পায়নি এর বিনিময়ে হাফসা ভালো থাকুক কেউ যে ওর ক্ষতি না করে। মানুষ অন্যের সত্যিটা জানলে ঠেকে রাখে আমি ও তো ঠেকে রাখতাম এত বড় বাজি আ…ফ কষ্টটা অনেক বেশি হয়ে গেলোরে ভাই। আমার পরিবারের সকলকে বলছি মাফ করে দিও আর কষ্ট সয্য করতে পারছিলাম না এত চাপ নিতে পারছিলাম না। রায়হান বন্ধু ভালো থাকিছ নিজের খেয়াল রাখিছ আমার জন্য তো অনেক করছোছ কষ্ট ছারা তোরে কিছুই দিতে পারি নাই। সবাই মাফ করবেন চলার পথে কষ্ট দিয়ে থাকলে। ওপারে চলে যাবো দোয়া করবেন আল্লাহ হাফেজ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।