রবিবার, ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি
রবিবার, ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শান্তির প্রত্যাশায় ডামুড্যা পৌর নির্বাচন থেকে সরে গেলেন নৌকার প্রার্থী

শান্তির প্রত্যাশায় ডামুড্যা পৌর নির্বাচন থেকে সরে গেলেন নৌকার প্রার্থী
ডামুড্যা পৌরসভা নির্বাচন থেকে সরে যাওয়া ঘোষনা সভায় উপস্থিত নেতৃবন্দ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

ডামুড্যা পৌরসভা নির্বাচনের স্থগিত দুই ভোট কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ নিয়ে কোন প্রকার সহিংসতা সৃষ্টি না করার লক্ষ্যে ও ডামুড্যা পৌরবাসীকে শান্তিপুর্ণ সহবস্থানে রাখার প্রত্যাশায় পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী নৌকা মার্কার প্রার্থী মাস্টার কামাল উদ্দিন আহমেদ। তিনি ২৭ ফেব্রুয়ারী শনিবার সকালে ডামুড্যা উপজেলা পরিষদ মাঠে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে এ ঘোষনা দেন। শরীয়তপুর জেলা পরিষদ সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান আবুল মনসুর আজাদ শামীম খান এর সঞ্চালনায় এ সমাবেশে মাস্টার কামাল উদ্দিন আহমেদ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী (জগ প্রতিক) মোঃ রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীর হোসেন মাঝি। এসময় বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উপস্থিত নেতাকর্মীগণ করতালির মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। তারা বলেন, রাজনীতির উদারতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন আজকে এ নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশে রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল বলেন, আমাদের শ্রদ্ধেয় শিক্ষক মাস্টার কামাল উদ্দিন আহমেদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেও স্থগিত দুই ভোট কেন্দ্রে নির্বাচন কমিশনের আইন অনুযায়ী ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। তাই ২৮ ফেব্রুয়ারী স্যারের দোয়া নিয়ে সারাদিন জগ মার্কায় ভোট দিয়ে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে বিজয় মিছিল করবো। আমরা শান্তি চাই। তৃতীয় কোন শক্তি যেন আমাদের মাঝে প্রবেশ করে শান্তি বিনষ্ট করতে না পারে সে ব্যাপারেও সকল নেতাকর্মীসহ প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।
মাস্টার কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, সবাই জনপ্রিয়তা যাচাই এর জন্য নির্বাচন করে। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার ত্রিশ বছরের রাজনীতির পরীক্ষার জন্য প্রার্থীতা চেয়েছিলাম। জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বিবেচনায় আমাকে যোগ্য মনে করে ডামুড্যা পৌরসভার মেয়র পদে প্রার্থী করেছেন। আমি লক্ষ্য করেছি কিছু স্বার্থন্বেষী ও সুবিধাবাদীরা আমাকে ও রাজাকে ব্যবহার করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। কেউ যাতে ডামুড্যা পৌরবাসীর সহবস্থান ও শান্তি বিঘ্নিত না করতে পারে তার জন্যই আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম।
এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মাঝি সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য উভয় মেয়র প্রার্থীকে ধন্যবাদ জানান। তাদের স্থাপন করা নজির ডামুড্যার রাজনীতিতে ভবিষ্যতে শান্তির বাতাস প্রবাহিত করবে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।