বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ডামুড্যায় ছেলেদের লাঠির আঘাতে মা আহত

ডামুড্যা ধানকাঠিতে ভাইয়ের ছুড়ির আঘাতে আহত মোস্তাফিজুর রহমান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ছবি-দৈনিক হুংকার।

ডামুড্যা উপজেলার ধানকাটি ইউনিয়নের মোল্লাকান্দি গ্রামে ছেলে উজ্জ্বল (৩৫), মেহেদী (২৫) ও বায়েজিদের (২০) দের লাঠির আঘাতে মা অমর্ত বেগম গুরুতর আহত হয়েছে। মাকে রক্ষা করতে আসা অপর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান ও তার স্ত্রীকে ছুড়ি দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে হামলাকারীরা। ১৪ সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা ১১ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
স্থানীয় সূত্র ও আহতদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, উপজেলার চরমালগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের দপ্তরী আব্দুল মালেক সরদার গত বছর মস্তিস্কের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যায়। এর পূর্বে আব্দুল মালেক পেনশনের দাবীদার হিসেবে তার স্ত্রী অমর্ত বেগমকে শতভাগ নমিনী করে যায়। স্বামীর পেনশনে টাকা উত্তোলন করতে গেলে ছেলেরা মাকে বাঁধা প্রদান করে। ছেলেদের বাঁধা উপেক্ষা করে টাকা তুলতে গেলে তিন ছেলে মিলে মাকে লাঠি দিয়ে মারধর করে। অপর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান ও তার স্ত্রী পপি আক্তার মাকে রক্ষা করতে গেলে হামলাকারীরা তাদেরও ছুড়ি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।
আহত অমর্ত বেগম বলেন, ছেলেরা আমার স্বামীর পেনশনের টাকার জন্য আমাকে মারধর করেছে। আমি আর কিছু বলতে পারবো না।
হাসপাতাল থেকে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমার মাকে আমার ভাইয়েরা মারতে গেলে আমি আমার মাকে রক্ষা করতে যাই। তখন ওরা আমাকে এলোপাথারি কুপিয়ে জখম করে।
আহত পপি আক্তার বলেন, আমার স্বামীকে তার অপর ভাইয়েরা মারধর করছিল। আমি ওদের মারতে নিষেধ করলে আমাকেও কুপিয়ে জখম করেছে।
অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তাদের বাড়িতে যাওয়া হয়। সেখানে গিয়ে তাদের পাওয়া যায়নি।
ডামুড্যা থানার ওসি (তদন্ত) এমারত হোসেন জানান, থানায় এই বিষয়ে কোন অভিযোগ পাওয়া যায় নাই। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।