শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ডামুড্যায় সরকারি রাস্তায় বেড়া দিয়ে চলাচল বন্ধের অভিযোগ

ডামুড্যায় সরকারি রাস্তায় বেড়া দিয়ে চলাচল বন্ধ। ছবি-দৈনিক হুংকার।

নয়টি পরিবারের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটি পাঁচটি বেড়া দিয়ে অবরোধ করেরাখা হয়েছে। বাড়িতে চলাচলের রাস্তায় দেওয়া হয়েছে বাঁশ ও গাছের ডালের বেড়া।
ঘটনাটি শরীয়তপুরের ডামুড্যা পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ ডামুড্যা এলাকার। এঘটনায় অবরুদ্ধ পরিবার গুলো ডামুড্যা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও পৌরসভার মেয়র বরাবর অভিযোগপত্র দিয়েছেন।
অভিযোগপত্র থেকে ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ডামুড্যা পৌরসভার দক্ষিণ ডামুড্যা এলাকার খালপাড়ের কাঁচা রাস্তা দিয়ে প্রায় একশত বছর যাবত যাতায়াত করছেন নয়টি পরিবারের লোকজন। সরকারিভাবে বেশ কয়েকবার রাস্তাটিতে মাটি দিয়ে মেরামত এবং কালভার্ট তৈরি করা হয়েছে।
বিআরএস রেকর্ড হলে বিআরএস ৩৯২ নং দাগে শেণি পথ ভূমি ১৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ নকশায় পথ (রাস্তা) দেখানো হয়েছে। এছাড়া বিআরএস ৪১৬ নং খতিয়ানে ব্যক্তির নামে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে রাস্তাটি পাকা করতে ডামুড্যা পৌরসভা একটি টেন্ডারও নিয়েছে। নয়টি পরিবার ও সাধারণ মানুষের যাতায়াতের রাস্তাটিতে বাঁশ ও গাছের ডাল দিয়ে পাঁচটি বেড়া দিয়েছে। এতে নয়টি পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পরেছে। তারা অন্যের বাড়ি দিয়ে যাতায়াত করছেন।
মোস্তাফিজুর রহমান, আব্দুস ছাত্তার পাইক, মোঃ মুকিত মাদবর,জনি, মোস্তাফিজসহ অবরুদ্ধ পরিবারের লোকজন বলেন, প্রতিবেশি ইমাম হোসেন ইমন, হুমায়ুন কবির উজ্জ্বল ফকির ও সুমন ফকির মিলে আমাদের বাড়ি থেকে আসা যাওয়ার একমাত্র শতবছরের রাস্তাটি বন্ধ করে দিয়েছে। তারা গাছের ডাল ও বাঁশ দিয়ে পাঁচটি বেড়া দিয়ে আমাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছে। আমরা অন্যের বাড়ির ওপর দিয়ে যাতায়াত করছি। এতে অনেক সমস্যা হচ্ছে। আমরা চাই রাস্তার বেড়া তুলে নেয়া হোক ও পৌরসভা থেকে দ্রুত রাস্তাটি পাকা করে দেয়া হোক।
এদিকে, বেড়া দেয়া ইমাম হোসেন ইমন বলেন, রাস্তাসহ ওইখানে যে জমি আছে, তা আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। তাই আমরা বেড়া দিয়েছি। তাতে কারো সমস্যা হওয়ার কথা নয়।
ডামুড্যা পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম রাজা ছৈয়াল বলেন, এবছর যে বরাদ্দ এসেছে, তা দিয়ে পৌরসভার কিছু সড়কের টেন্ডার আহবান করি। ওই সড়কটির জন্য ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর একটি চাহিদাপত্র দিয়েছিল। যেহেতু রাস্তাটি সরকারি তাই রাস্তাটি পাকা করা হবে। এখন সরকারি রাস্তাটির ওপর বেড়া দিয়েছে। জনগণের ভোগান্তির সৃষ্টি করছে। ব্যাপারটি আমি দেখবো। ইতিমধ্যে ঠিকাদারকে রাস্তার কাজ ধরার জন্য বলেছি।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) সবিতা সরকার বলেন, ডামুড্যা পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের জনসাধারণ চলাচলের রাস্তা বন্ধের একটি অভিযোগ পেয়েছি। উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।