বৃহস্পতিবার, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কষ্টে দিন কাটছে জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুলে ভাতা বঞ্চিত মমতাজের

কষ্টে দিন কাটছে জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুলে ভাতা বঞ্চিত মমতাজের
মমতাজ বেগম। ছবি-দৈনিক হুংকার।

মানুষের জন্ম ও মৃত্যু বিধাতার বিধি অনুযায়ী একবার হলেও ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের মৃত খোরশেদ আলী সরদারের স্ত্রী মমতাজ জন্ম নিয়েছে দুইবার। এর ফলে দীর্ঘদিন বয়স্কভাতা ভোগ করার পরেও চলতি বছরে তার কার্ডটি বাতিল হয়ে গেছে। ফলে সরকারের দেওয়া সুখ স্বপ্নের শেষ সুযোগটি হারিয়ে এখন সে পথে পথে ঘুরছে।
জাতীয় পরিচয়পত্রে বয়স কম থাকায় তার ভাতা এমআইএস করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন ভেদরগঞ্জ উপজেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তর। বর্তমানে ভাতা কার্যক্রম অনলাইন ভিত্তিক হওয়ায় জাতীয় পরিচয়পত্রে বয়স ভুলের কারণে তার ভাতা প্রদান অনলাইন না হওয়ায় তাদের আর কিছু করার নেই।
জানা গেছে, জন্ম নিবন্ধন অনুযায়ী মমতাজের জন্ম তারিখ হচ্ছে ১৯ আগস্ট ১৯৪৭ আর জাতীয় পরিচয়পত্রে তার জন্ম তারিখ লিখা হয়েছে ১ জানুয়ারী ১৯৮৪। ফলে তার বর্তমান বয়স দাঁড়ায় মাত্র ৩৭ বছর। এদিকে তার বড় মেয়ের ঘরের নাতি ওমর ফারুক এর বয়স ৪১ বছর। তার বয়স কিভাবে ৩৭ হয় এটা বুঝতে পারছে না এলাকাবাসী।
স্থানীয় ওয়ার্ড সদস্য সরদার শরিয়ত উল্যাহ তোতা বলেন, আমি বিগত ১০ বছর যাবৎ টানা এই ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য। আমার আগে যিনি সদস্য ছিলেন তার আমলে মমতাজ বয়স্ক ভাতার কার্ড প্রাপ্ত হন। তার আনুমানিক বয়স আশির উপরে হবে। শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুলের কারণে অসহায় এই বৃদ্ধ নারী সরকারি সুবিধা বঞ্চিত হলো।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার তাপস বিশ্বাস বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের বয়স ভুলের কারণে অনলাইন করতে না পারায় মমতাজের অনেকেই ভাতা বঞ্চিত হয়েছে। তবে তারা আগামী ৩ মাস পর্যন্ত পুরনো নিয়ম অনুযায়ী ভাতা প্রাপ্ত হবেন। এছাড়া জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করে আবেদন করলে ভাতাভোগী হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এর বাইরে আমাদের এই মুহুর্তে আর কিছু করনীয় নাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

মন্তব্য

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।