বৃহস্পতিবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৮ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
বৃহস্পতিবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হলেন ডা. খালেদ শওকত আলী

যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হলেন ডা. খালেদ শওকত আলী
যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হলেন ডা. খালেদ শওকত আলী

বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ ও ৭১ ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি, শরীয়তপুরের নড়িয়ার কৃতি সন্তান ডা. খালেদ শওকত আলী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। শনিবার (১৪ নভেম্বর ২০২০) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে যুবলীগের পুর্নাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষনা করা হয়। কমিটিতে ডা.খালেদ শওকত আলীকে ৬ নং প্রেসিডিয়াম সদস‌্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

এদিকে ডা. খালেদ শওকত আলী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় নড়িয়ায় তার রাজনৈতিক নেতকর্মীরা আনন্দে উচ্ছাসিত। শনিবার রাতে প্রেসিডিয়াম সদস‌্য হওয়ার খবরে নেতাকর্মীরা এলাকায় মিষ্টিমুখ করে উল্লাস করেন। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যমে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন অনেকে।

ডা. খালেদ শওকত আলী শরীয়তপুর-২ আসনের ৬ বারের সাবেক সংসদ সদস্য, সাবেক ডেপুটি স্পীকার ও ঐতিহাসিক আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম আসামী কর্ণেল (অব.) শওকত আলীর পুত্র। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন তিনি।

ডাঃ খালেদ শওকত আলীর রাজনীতির প্রথম দীক্ষা বাবার কাছ থেকেই। ছাত্র জীবনে নটরডেম কলেজে পড়াশুনাকালীন সময়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিয়ে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। এসময় এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখেন। পরবর্তীতে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজে ভর্তি হওয়ার পর তৎকালীন সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজ কর্তৃক নির্যাতিত হন, পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল তার বই পুস্তক। সেই সময়ে বাবা জেলে থাকায় সোভিয়েত ইউনিয়নে চলে যেতে বাধ্য হন। সোভিয়েত ইউনিয়নের ভিনিৎসা শহরে বাংলাদেশ স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করার সময় সার্ক স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের যুগ্ন আহবায়কের দায়িত্ব পালন এবং বাংলাদেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি,মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের সংগ্রামের ইতিহাস বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে তুলে ধরতে বলিষ্ট ভূমিকা পালন করেন।

চাকুরি জীবনে সৌদি-আরবে থাকাকালীন জেদ্দা এবং মক্কা নগরীতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের সাথে ওতপ্রোতভাবে কাজ করার পাশাপাশি জননেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তির জন্য জনমত সৃষ্টি এবং আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশে ফিরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ গ্রহণ করেন। ২০১৩ সালে নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এবং ২০১৪ সালে শরীয়তপুর আওয়ামী লীগের সদস্য পদ গ্রহণ করেন। ২০১৩ সালে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বাস্তবায়নে ও “মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়বো বাংলাদেশ” ¯স্লোগান কে সামনে রেখে গঠন করেন ৭১ ফাউন্ডেশন নামক একটি সংগঠন। ডাঃ খালেদ শওকত আলী বর্তমানে ৭১ ফাউন্ডেশন ও বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ এর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। নিজ এলাকার মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে প্রতিষ্ঠা করেছেন মাজেদা হাসপাতাল। মহামারী করোনাকালীন সময়ে এ হাসপাতালে সার্বক্ষনিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছেন দেশব‌্যাপী। এছাড়া নড়িয়া উন্নয়ন সমিতির (নসা)র ভাইস চেয়ারম‌্যান এর দায়িত্ব পালন করছেন।

যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হওয়ায় ডা. খালেদ শওকত আলী তার প্রতিক্রিয়ায় দৈনিক হুংকারকে বলেন, ধন্যবাদ জানাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান জনাব শেখ ফজলে শামস পরশ এবং সাধারন সম্পাদক জনাব আলহাজ্ব মাইনুল হাসান খান নিখিলকে, আমাকে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম মেম্বার করায়। সকলের দোয়া চাই, আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব সততা এবং নিষ্ঠার সাথে পালন করতে পারি। বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে যে লক্ষ্য নিয়ে যুবলীগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, একটি আত্মনির্ভরশীল যুব সমাজ, সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা প্রদানে সক্ষম যুব সমাজ, শোষনমুক্ত মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে অঙ্গীকারবদ্ধ যুবসমাজ গঠনের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এক নতুন প্রজন্মের আকাংখার যুবলীগ আমরা প্রতিষ্ঠা করবো, ফিরিয়ে আনবো আদর্শিক যুবলীগ।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।