রবিবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
রবিবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনা থেকে মুক্তির জন্য সংসদে মোনাজাত ও তওবা

করোনা থেকে মুক্তির জন্য সংসদে মোনাজাত ও তওবা

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) আক্রমণকে বাংলাদেশ ও বিশ্বের ওপর ‘গজব’ আখ্যায়িত করে এ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য সংসদে মোতাজাত করা হয়েছে। করা হয়েছে তওবাও।

চলতি সংসদের সদস্য শামসুর রহমান শরীফসহ কয়েকজন সাবেক সংসদ সদস্য ও বিশিষ্টজনের মৃত্যুতে শনিবার (১৮ এপ্রিল) সংসদে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। শোক প্রস্তাব উত্থাপনের পর তা গৃহীত হওয়ার পর মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় মোনাজাতে করোনা প্রসঙ্গ উঠে আসে।

মোনাজাত পরিচালনা করেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। এ সময় তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বারবার আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘আল্লাহ তুমি বলেছ, বান্দাদের তুমি হাওস করে পয়দা করেছো। ব্যক্তিগত কোনো কারণে কিংবা আমাদের কোনো পাপের কারণে বাংলাদেশের ওপর করোনা নামে গজব দিয়েছ। আজকে আমরা তোমার কাছে আত্মসমর্পণ করছি, কমপ্লিট সারেন্ডার করে তোমার কাছে তওবা পড়ছি। আল্লাহ তুমি বলেছ, আমি বান্দা সৃষ্টি করেছি তাদের দোয়া কবুল করার জন্য। আমরা তোমার কাছে দোয়া করছি, ফরিয়াদ জানাচ্ছি। আমরা তোমার কাছে তওবা করছি। আল্লাহ আমাদের তুমি মাফ করে দাও। সাথে সাথে তুমি বাংলাদেশের ওপর যে গজব নাযিল করেছ সেই গজবকে তুমি তুলে নাও। সারা বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে । বিশ্ববাসীকে তুমি হেফাজত কর। বাংলাদেশের ওপর তুমি তোমার খাস রহমত বরকত নাযিল কর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে তুমি নেক হায়াত দান কর।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে যেভাবে এই করোনাভাইরাসকে মোকাবিলা করার জন্য বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে সেই তৌফিক তাকে দান কর। একটির পর একটি তিনি যে প্রোগ্রাম ঘোষণা করছেন সেই প্রোগ্রামগুলো যেন আমরা মেনে চলি।’

ডেপুটি স্পিকার বলেন, ‘তোমার হুকুম ছাড়া গাছের পাতাও নড়ে না। করোনাভাইরাস নামে যে আজাব-গজব দিয়েছ তার হাত থেকে তুমি আমাদের রক্ষা কর। সারা বিশ্বকে রক্ষা কর। ওই আবাবিল পাখির মুখে একটা ছোট্ট কংকর দিয়ে তুমি কাবাঘর রক্ষা করেছিলে। আমাদের মতো ধর্মপ্রাণ মুসলমান পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে কম আছে। এই ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের দোয়া তুমি কবুল কর।’

‘বাংলাদেশের সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠান জাতীয় সংসদ। এই জাতীয় সংসদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ তোমার দরবারে হাত তুলেছি। তুমি আমাদেরকে খালি হাতে ফেরত দিও না আল্লাহ। তুমি বলেছ, সরকারপ্রধান যদি সৎ হয় তার দোয়া কবুল কর। আমাদের মধ্যে কারও যদি হাত তোমার পছন্দ হয়, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাতের ওছিলায় তুমি আমাদের সকলকে মাফ করে দাও। তুমি আমাদের সকলকে হেফাজত কর। বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের বাইরে যেসব মুসলমান রয়েছে তাদেরকে হেফাজত কর। বাংলাদেশের যাতে কোনো অর্থনৈতিক মন্দাভাব দেখা না দেয়, তার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে সমস্ত প্রোগ্রাম শুরু করেছেন, সে প্রোগ্রামগুলো যাতে সাফল্যমণ্ডিত হয় সেই তৌফিক তুমি আমাদেরকে দান কর’-মোনাজাতে বলেন ডেপুটি স্পেকার ফজলে রাব্বী মিয়া।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।