শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২০ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ রজব ১৪৪৪ হিজরি
শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

মাদারীপুরে শিবচরে র‌্যাবের হাতে ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার

মাদারীপুরে র‌্যাবের হাতে আটক ধর্ষণ মামলার আসামী এসকেন্দার ফরাজী। ছবি-দৈনিক হুংকার।

র‌্যাব-০৮, সিপিসি-০৩ মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোম্পানী অধিনায়ক লেঃ কমান্ডার কে এম শাইখ আকতার এর নেতৃত্বে ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ রাত ১২.৩০ ঘটিকায় শরীয়তপুর জেলার জাজিরা থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে জাজিরা থানাধীন সেনেরচর ইউনিয়ন, ৪ নং ওয়ার্ড জনৈক মোঃ জলিল মাদবর (৪৫), পিতা-আমজাদ মাদবর এর বাড়ী হতে গ্রেফতার করে। শরীয়তপুর জেলার জাজিরা থানার মামলা নং-১৩, তারিখঃ ১৩/১২/২০২২ ইং ধারা নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) এর ৯(১) এজাহার ভুক্ত ধর্ষন মামলার পলাতক আসামী এসকেন্দার ফরাজী (৫২), পিতাঃ হাসেম ফরাজী, সাং-মুজাফফরপুর রাঢ়ী কান্দি, থানাঃ শিবচর, জেলাঃ মাদারীপুর কে আটক করে। ঘটনার বিবরণে জানাযায় উক্ত মামলার ভিকটিম একজন মানষিক প্রতিবন্ধি। মাদারীপুর জেলার শিবচর থানাধীন মুজাফফরপুর রাঢ়ীকান্দি গ্রামে জনৈক মোস্তফা দেওয়ান (৫০) পিতা-বাদশা দেওয়ান এর সাথে ভিকটিমের অনুমান ০২ (দুই) বছর পূর্বে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকে সে তার স্বামীর বাড়ীতে থাকে। আসামী এসকেন্দার ফরাজী (৫২) ও তার স্বামী একই বাড়ীতে বসবাস করার সুবাদে আসামী বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অযুহাতে ভিকটিম এর স্বামীর দোচালা টিনের বসত ঘরে আসা যাওয়ার সুযোগে ভিকটিম কে কু-স্তাব দিতো। গত ০৭/১২/২০২২ ই তারিখে সন্ধ্যা অনুমান ০৭.০০ ঘটিকার সময় ভিকটিমের স্বামী চা খাওয়ার জন্য মোজাফফরপুর বাজারে যায়। একই তারিখ রাত অনুমান ০৮.০০ ঘটিকায় আসামী এসকেন্দার ফরাজী (৫২) ভিটিমের বাড়িতে এসে তার স্বামীকে খোঁজাখুজি করে। ভিকটিম তখন জানায় যে তার স্বামী বাজারে গেছে এই সুযোগে আসামী ভিকটিমকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার স্বামীর বসত ঘরে প্রবেশ করিয়া ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ভিকটিমের স্বামী মোস্তফা দেওয়ান বাজার থেকে বসত ঘরের সামনে আসলে আসামী এসকেন্দার ফরাজী (৫২) টের পাইয়া ঘর থেকে বাহির হয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়।
এই ঘটনা পত্রপত্রিকা, সোসাল মিডিয়া, টিভি মিডিয়া সহ সর্বত্র ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে সর্বত্র একটি চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ ঘটনা র‌্যাব-৮ (মাদারিপুর ক্যাম্প) এর নজরে আসলে ছায়াতদন্ত শুরু করা হয় এবং গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়। ভিকটিমের মা মধুমালা বেগম (৪০), বাদী হয়ে মাদারাীপুর জেলার শিবচর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব ৮ (মাদারিপুর ক্যাম্প) র‌্যাব গোয়েন্দা বিভাগের সহযোগিতায় শরিয়তপুরের জাজিরা থেকে পলাতক ধর্ষক এসকেন্দার ফরাজীকে গ্রেফতার করে। আটককৃত আসামীকে মাদারীপুর জেলার শিবচর থানা পুলিশ এর নিকট জিডি মুলে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


error: দৈনিক হুংকারে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।